বাদলের দুঃখ প্রকাশ

0
57

ক’দিন আগে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি), বোর্ড সভাপতি ও পরিচালকের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছিলেন সফল ক্রিকেট সংগঠক এবং লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের কর্ণধার লুৎফর রহমান বাদল। তার মন্তব্যের পর দেশের ক্রিকেটাঙ্গনে বিবৃতি-পাল্টা বিবৃতি দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। উত্তপ্ত হয়েছে ক্রীড়াঙ্গন। তবে সব ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার অবসান ঘটাতে এগিয়ে এলেন লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের মালিক নিজেই। বিসিবি ও কিছু কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মন্তব্যের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন তিনি।

Lutfor-Rahman
লুৎফর রহমান বাদল (ফাইল ছবি)

আজ মঙ্গলবার এক সংবাদ বিবৃতিতে বাদল জানান, আমার সেই মন্তব্য ও প্রতিক্রিয়ায় ক্রিকেটাঙ্গনের কেউ যদি দুঃখ ও কষ্ট পেয়ে থাকেন তবে আমি আমার সেদিনের সেই আবেগপ্রবণ মন্তব্যের জন্য আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি।

দুঃখ প্রকাশ করে বাদল আশা প্রকাশ করেন, এর মধ্য দিয়ে ক্রিকেটাঙ্গনে সব ধরনের উত্তেজনা ও ব্যক্তিকেন্দ্রিক বিদ্বেষের অবসান ঘটবে।

সমস্যার সমাধানে বিসিবি সভাপতি ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবেন- এমন আশা প্রকাশ করে বিবৃতিতে তিনি বলেন, “নাজমুল হাসান বাংলাদেশের ক্রিকেটের অভিভাবক। আমার ক্রিকেট স্পিরিট তিনি অনুধাবন করতে পারবেন। আশা করি, আমার এই লিখিত বিবৃতির মধ্য দিয়ে সাম্প্রতিক সমস্যার সমাধানে তিনি ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবেন। তার হাত ধরে বাংলাদেশের ক্রিকেট সফলতা পাবে বলে আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি।”

এর আগে বিসিবি সভাপতি প্রসঙ্গে লুৎফর বলেছিলেন, বোর্ড সভাপতির কর্মচারী মল্লিককে (বিসিবি পরিচালক ইসমাইল হায়দার মল্লিক) দিয়ে সব করানো হয়। সে-ই সূচি থেকে শুরু করে মাঠ, আম্পায়ার বোর্ডের সব কিছু করে।

তার মন্তব্যের কঠোর সমালোচনা করে বিসিবি সভাপতি জানান, ক্রিকেটে কোনো বিষফোঁড়া রাখা হবে না।

এছাড়া বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক ও বোর্ড পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজনকে বাংলাদেশ ক্রিকেটের কলঙ্ক হিসেবে অভিহিত করেছিলেন বাদল।

তার বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে গত সোমবার ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট ক্লাবস অ্যাসোসিয়েশন, ক্রিকেটার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব), বাংলাদেশ ক্রিকেট আম্পায়ার্স অ্যান্ড স্কোরার্স অ্যাসোসিয়েশনের যৌথ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। তারা লুৎফরের বিরুদ্ধে বিভিন্ন কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য রেখে তাকে ক্রীড়াঙ্গন থেকে বহিষ্কারের দাবী জানান।

অন্যদিকে বিসিবি ভবনের কঠোর নিরাপত্তাকে ‘বুড়ো আঙ্গুল’ দেখিয়ে সেখানে রাজনৈতিক ধারায় চলে লুৎফর রহমানের বিপক্ষে নানা শ্লোগান। কয়েক ডজন উঠতি বয়সি তরুণের ওই শ্লোগান-মিছিলে নেতৃত্ব দেয় বিসিবির জনৈক কর্মচারী। বিসিবি ভবন, স্টেডিয়ামের প্রধান ফটক ও সীমানাপ্রাচীর ভরে যায় লুৎফরের বিরুদ্ধে লেখা শ্লোগান সম্বলিত ব্যানারে।

তবে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের মালিক মনে করেন, তার সেদিনের মন্তব্যে দুঃখ প্রকাশ করার পর এখন সব ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার অবসান হবে।

এদিকে, বিরূপ মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের কর্ণধার লুৎফর রহমান বাদল এবং সমন্বয়ক তরিকুল ইসলাম টিটুকে প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগে সাময়িক নিষিদ্ধ করেছে ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিস (সিসিডিএম)।

বাদলের মন্তব্যের বিষয়টি বিসিবির ডিসিপ্লিনারি কমিটির কাছে জানিয়েছে সিসিডিএম। এ ব্যাপারে বিসিবি ডিসিপ্লিনারি কমিটিই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে। তবে এর আগ পর্যন্ত প্রিমিয়ার লিগে যেকোনো ক্রিকেটীয় কার্যক্রমে নিষিদ্ধ থাকবেন বাদল।

ইউএম/