ইবিতে ভর্তি সাক্ষাৎকার শুরু বৃহস্পতিবার

0
81
EB
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়- ফাইল ছবি

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় মেধা তালিকায় উত্তীর্ণদের সাক্ষাৎকার হবে আগামী ১১ ডিসেম্বর। বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়ে এ সাক্ষাৎকার চলবে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটির এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটির বৈঠক সূত্রে জানা যায়, আগামী ১১ ডিসেম্বর থেকে স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় মেধা তালিকায় উত্তীর্ণদের সাক্ষাৎকার শুরু হয়ে আগামী ১৫ ডিসেম্বর শেষ হবে।

এর আগে ৭ ডিসেম্বর থেকে সাক্ষাৎকার নেওয়ার কথা ছিল। তবে কর্তৃপক্ষ অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করায় পূর্ব নির্ধারিত সাক্ষাকারের সময়সূচি স্থগিত করা হয়।

ভর্তি কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক নতুন ঘোষিত সময়সূচি অনুযায়ী আগামী ১১ ও ১৩ ডিসেম্বর ধর্মতত্ত্ব অনুষদভুক্ত ‘এ’, সমাজ বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘সি’, বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ডি’ এবং আইন ও শরিয়াহ অনুষদভুক্ত ‘এইচ’ ইউনিট, ১১ ও ১২ ডিসেম্বর বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ই’ ইউনিট, ১১, ১৩ ও ১৫ ডিসেম্বর ব্যবসায় অনুষদভুক্ত ‘জি’ ইউনিট, ১৩ ডিসেম্বর গণিত ও পরিসংখ্যাণ বিভাগভুক্ত ‘এফ’ ইউনিট এবং ১১ ও ১৫ ডিসেম্বর কলা অনুষদভুক্ত ‘বি’ ইউনিটের সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হবে।

১১ ডিসেম্বর ‘এইচ’ ইউনিটের আইন, ‘ডি’ ইউনিটের প্রথম শিফট ও কলা অনুষদভুক্ত ‘বি’ ইউনিটের প্রথম তিন শিফটে মেধা তালিকায় ক্রমানুসারে ১-৪৫ ও চতুর্থ শিফটে মেধা তালিকায় ক্রমানুসারে ১-৩৮ উত্তীর্ণদের সাক্ষাৎকার নেওয়া হবে।

এছাড়া ১৩ ডিসেম্বর ‘এইচ’ ইউনিটের ফিকাহ ও ‘ডি’ ইউনিটে দ্বিতীয় শিফটে মেধা তালিকায় উত্তীর্ণ এবং ১৫ ডিসেম্বর কলা অনুষদের ‘বি’ ইউনিটে প্রথম ও তৃতীয় শিফটে মেধা তালিকায় উত্তীর্ণ ক্রমানুসারে ৪৬-৮৮, দ্বিতীয় শিফটের ৪৬-৮৯ এবং চতুর্থ শিফটের ৩৯-৭৫ ক্রমানুসারে উত্তীর্ণদের সাক্ষাৎকার নেওয়া হবে।

ভর্তিচ্ছুদের আগামী ২২ ডিসেম্বরের মধ্যে ভর্তি কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে।

সাক্ষাৎকার সংশ্লিষ্ট ইউনিট সমন্বয়কারীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে এবং প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে সাক্ষাৎকার শুরু হবে। এ সময় ভর্তিচ্ছুদের অবশ্যই এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান পরীক্ষার মূল সনদপত্র, নম্বরপত্র, রেজিস্ট্রেশন কার্ড, ভর্তি পরীক্ষার প্রবেশপত্র, সদ্যতোলা পাসপোর্ট সাইজের ছবি সঙ্গে আনতে হবে।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. আবদুল হাকিম সরকার বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় যদিও বন্ধ রয়েছে তারপরও ভর্তি কার্যক্রম চলবে। তবে দূর-দূরান্ত থেকে আসা শিক্ষার্থীদের যাতে ভোগান্তি না হয় সে বিষয় বিবেচনা করে তাদের সুবিধার্থে হল খোলা রাখা যায় কি-না সে ব্যাপারে আগামীকালের বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, গত ৩০ নভেম্বর ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে বাসচাপায় এক ছাত্রের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীরা ব্যাপক তাণ্ডব চালায়। শিক্ষার্থীদের দেওয়া আগুনে পুড়ে যায় অন্তত ২০টি বাস।

এ ঘটনার পর ওইদিন বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আবদুল হাকিম সরকারের সভাপতিত্বে এক জরুরি বৈঠকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

এএসএ/