লতিফ সিদ্দিকীর জামিন মেলেনি

0
89
Latif Siddique
রাজধানীর ধানমণ্ডি থানায় আত্মসমর্পণের পর সিএমএম কোর্টে নেওয়া হয় সাবেক মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে। ছবি: খালেদুল কবির নয়ন

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ার অভিযোগে করা মামলায় মন্ত্রিসভা ও আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করেছেন আদালত। একইসঙ্গে অভিযোগ (চার্জ) গঠনের শুনানির দিন পিছিয়ে আগামী বছরের ১৫ মার্চ পুনর্নির্ধারণ করা হয়েছে।

Latif Siddique
রাজধানীর ধানমণ্ডি থানায় আত্মসমর্পণের পর সিএমএম কোর্টে নেওয়ার পথে সাবেক মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীকে। ছবি: খালেদুল কবির নয়ন

আজ রোববার সকালে জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করেন ঢাকা মহানগর হাকিম আসাদুজ্জামান নূরের আদালত।

অ্যাডভোকেট এ এম এম আবেদ রাজার দায়ের করা মামলাটিতে জামিনের আবেদন জানিয়েছিলেন লতিফ সিদ্দিকীর আইনজীবী ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া। তিনি অভিযোগ গঠনের শুনানির বিষয়ে ২ মাস সময়ের আবেদন জানান। পরে অভিযোগ গঠনের শুনানির দিন পিছিয়ে আগামী বছরের ১৫ মার্চ পুনর্নির্ধারণ করেন আদালত।

এর আগে গত ৩০ নভেম্বর মামলাটির বিচার শুরুর জন্য ঢাকা মহানগর হাকিম আসাদুজ্জামান নূরের আদালতে বদলির আদেশ দেন ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) বিকাশ কুমার সাহা। একইসঙ্গে রোববার অভিযোগ (চার্জ) গঠনের শুনানির জন্য দিন ধার্য করেন তিনি।

গত ২৫ নভেম্বর এ মামলায়ই রাজধানীর ধানমন্ডি থানায় আত্মসমর্পণ করেন আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী। দুপুরে তাকে মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুর রহমানের আদালতে হাজির করা হলে আদালতের নির্দেশে তাকে পাঠানো হয় ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে।

গত ২৮ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে টাঙ্গাইল সমিতির মতবিনিময় অনুষ্ঠানে তিনি হজ, তাবলীগ জামাত, প্রধানমন্ত্রীর পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয় ও সাংবাদিকদের সম্পর্কে বিরূপ মন্তব্য করেন। তার পুরো বক্তব্যের ভিডিও ক্লিপ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়।

এই পরিপ্রেক্ষিতে গত ১২ অক্টোবর ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রীর পদ থেকে তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। একই সাথে ওই দিন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্যের পদ থেকে এবং পরে গত ২৪ অক্টোবর আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্য পদ থেকেও চূড়ান্তভাবে বহিষ্কৃত হন আবদুল লতিফ সিদ্দিকী।

ওই ঘটনায় দেশের বিভিন্ন জেলায় হওয়া কয়েকটি মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানাও জারি করা হয়।

লতিফ সিদ্দিকীর ফাঁসির দাবিতে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশসহ বিভিন্ন ইসলামি সংগঠন এখনও আন্দোলন করে আসছে।

ইউএম/