ভুটানের প্রধানমন্ত্রী ঢাকায়

0
76
sering chopge
শেরিং তোবগে-ফাইল ছবি

ভুটানের প্রধানমন্ত্রী শেরিং তোবগে ৩ দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে আজ শনিবার সকাল ৯টায় ঢাকায় পৌঁছেছেন। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর শেরিং তোবগের এটাই প্রথম বাংলাদেশ সফর।

দ্রুক এয়ারের একটি বিশেষ ফ্লাইটে হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামলে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে স্বাগত জানান। এ সময় তাকে লাল গালিচা সংবর্ধনা ও ৩ বাহিনীর পক্ষ থেকে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়।

বিমানবন্দর থেকে ভুটানের প্রধানমন্ত্রী মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধে রওয়ানা হয়েছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, ৪৩ বছর আগে ১৯৭১ সালের এই দিনে বাংলাদেশকে স্বাধীন দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছিল ভুটান। সেই দিনটি স্মরণে রেখেই ভুটানের প্রধানমন্ত্রীর ঢাকা সফরের তারিখ নির্ধারিত হয়েছে।

সূত্র আরও জানায়, আজই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে শেরিং তোবগের দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হবে। বৈঠকে ৫বছর মেয়াদি বাণিজ্য চুক্তি নবায়নসহ দ্বিপক্ষীয় স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। এর মধ্যে রয়েছে ভুটান থেকে বিদ্যুৎ আমদনি ও ভুটানে ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ রফতানি, কৃষি, স্বাস্থ্য, আন্তঃযোগাযোগ, জলজসম্পদ, শিক্ষা ও সংস্কৃতি বিনিময়।

ঢাকায় ভুটানের দূতাবাস স্থাপনের জন্য জমি বরাদ্দ সংক্রান্ত পৃথক একটি লিজ চুক্তি স্বাক্ষরেরও কথা রয়েছে। শেরিং তোবগে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ এবং জাতীয় সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদের সঙ্গেও সাক্ষাৎ করবেন।

ভুটানের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী রিনজিন দর্জি এবং অর্থনীতি ও বাণিজ্য বিষয়ক মন্ত্রী নরবু ওয়াংচুকসহ ১০ সদস্যের প্রতিনিধি দল থাকছেন। এ ছাড়া উচ্চ পর্যায়ের একটি বাণিজ্য প্রতিনিধি দলও থাকছে এ সফরে।

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদসহ মন্ত্রিপরিষদের একাধিক সদস্যের সঙ্গে বৈঠক করবেন তারা। পদ্মা সেতু নির্মাণের জন্য ভুটান থেকে পাথর আমদানি, বাংলাদেশ থেকে ওষুধ রফতানি বৃদ্ধিসহ বাণিজ্য সহযোগিতার বিভিন্ন দিক নিয়ে প্রতিনিধি দল পর্যায়ে আলোচনা হবে বলে সূত্র জানায়।

সূত্র আরও জানায়, এরই মধ্যে বাংলাদেশ-ভুটান বাণিজ্য চুক্তির খসড়া চূড়ান্ত হয়েছে। চুক্তিতে নতুন কয়েকটি ধারা অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। বর্তমানে ভুটানের বাজারে বাংলাদেশের ৯০টি পণ্য এবং বাংলাদেশের বাজারে ভুটানের ১৮টি পণ্য শুল্কমুক্ত সুবিধা পাচ্ছে। গত অর্থবছরে বাংলাদেশ ভুটানে ১৯ লাখ ১০ হাজার সমপরিমাণ মার্কিন ডলারের পণ্য রফতানি করেছে, অন্যদিকে ভুটান থেকে আমদানি করা হয়েছে প্রায় ২ কোটি ২৫ লাখ ডলারের পণ্য।

এএসএ/