ইসলামী আন্দোলনের সমাবেশে অচল পল্টন

0
129

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সমাবেশে কারণে শুক্রবার বাদ জুমা রাজধানীর পল্টন এলাকা অচল হয়ে পড়ে। ‘নাস্তিক-মুরতাদদের’ ফাঁসির বিধান করে আইন পাস ও লতিফ সিদ্দিকীর ফাঁসির দাবিতে জুমা নামাজের পর বায়তুল মোকাররম মসজিদের উত্তর গেটে এ সমাবেশ শুরু করে চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ রেজাউল করিমের এ দল। বিকাল সাড়ে ৩ টার দিকে সমাবেশ শেষ হয়।

agains murtad-islami 1
শুক্রবার জুমা বাদ সমাবেশ করে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। ছবিটি রাজধানীর পল্টন মোড় থেকে তুলেছেন আলোকচিত্রী মহবার রহমান।

জুমার নামাজের পর ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনের রাস্তার পরিবর্তে পল্টন মোড় থেকে দৈনিক বাংলা মোড় পর্যন্ত সড়কে সমাবেশ করতে দিয়ে দুই পাশে ব্যারিকেড দেয় পুলিশ। তবে সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে কাকরাইল ও আশপাশের মসজিদ থেকে বিপুল সংখ্যক কর্মী আসতে থাকে। এক পর্যায়ে সমাবেশে আগতদের ভিড়ের কারণে উত্তরে কাকরাইল মোড়, পূর্বে দৈনিক বাংলা মোড়, দক্ষিণে জিরো পয়েন্ট ও পশ্চিমে হাইকোর্ট মোড় পর্যন্ত রাস্তায় গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

শুক্রবারে সাধারণত রাস্তায় যানযট না থাকলেওে এই সমাবেশের কারণে হঠাৎ রাস্তা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়ে গাড়ির চালক ও যাত্রীরা। গাড়ি নিয়ে বিকল্প রাস্তায় যেতেও বিপাকে পড়েছে চালকরা।

agains murtad-islami 2
শুক্রবার জুমা বাদ সমাবেশ করে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। ছবিটি রাজধানীর পল্টন মোড় থেকে তুলেছেন আলোকচিত্রী মহবার রহমান।

এদিকে বায়তুল মোকাররম মসজিদের উত্তর গেটে সমাবেশ করতে দিয়ে আশপাশের রাস্তায় আন্দোলনকারীদের অবস্থান দেখে নিরুপায় হয়ে পড়ে পুলিশ।

পুলিশ সদস্য মতিউর রহমান বলেন, আমাদের পরিকল্পনা ছিল তাদের শুধু বায়তুল মোকাররমের উত্তর পাশে সমাবেশ করতে দেবো। সেভাবেই প্রস্তুতি নিয়েছি। তবে নামাজের পর কাকরাইল ও গুলিস্তান থেকে নতুন করে মিছিল এসে রাস্তা দখলে নেওয়ায় তাদের সরিয়ে দেওয়া সম্ভব হয়নি।

আন্দোলনকারীদের দাবি, মুসলমানদের দেশে ইসলামের বিরুদ্ধে কথা বলে কেউ পার পেয়ে যাবে তা আমরা মেনে নেবো না। সভা-সমাবেশ আমাদের অধিকার। প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশ করতে দিলে এ সমস্যা হতো না।

পবিত্র হজ ও মহানবী হযরত মুহম্মদ (সা.) সম্পর্কে কটূক্তিকারী লতিফ সিদ্দিকী এবং ইসলাম ধর্মের বিরুদ্ধে কটূক্তিকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির আইন পাসের দাবিতে প্রায় একমাস আগে এই সমাবেশের ডাক দেয় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। কিন্তু সমাবেশের অনুমতি না পেয়ে বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে বাদ জুমা মহাসমাবেশের সিদ্ধান্ত নেয় দলটি।

এই সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর আমির মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম (পীর সাহেব চরমোনাই)। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ওলামা-মাশায়েখ, বুদ্ধিজীবী ও জাতীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাজধানীর পুরানা পল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য মাওলানা মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল মাদানী বলেন, সমাবেশের অনুমতি না দিলে রোববার সারা দেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডাকা দেওয়া হবে।