সি অ্যান্ড এ টেক্সটাইলের আইপিও লটারি হতে পারে ১১ ডিসেম্বর

0
88
সি অ্যান্ড এ টেক্সটাইল লোগো
সি অ্যান্ড এ টেক্সটাইল লোগো
সি অ্যান্ড এ টেক্সটাইল লোগো

প্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও) আবেদন শেষ করা সি অ্যান্ড এ টেক্সটাইল লিমিটেডের আইপিও লটারি হতে পারে আগামী ১১ ডিসেম্বর। তবে সব কিছু নির্ভর করছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) সম্মতির ওপর।

সংস্থাটি সম্মতি দিলেই কোম্পানিটি এ দিন লটারি করতে পারবে। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

তারা জানিয়েছে, সি অ্যান্ড এ টেক্সটাইলের আইপিওতে ৪৫ কোটি টাকার বিপরীতে ৮৭৮ কোটি ৭১ লাখ টাকার আবেদন জমা পড়েছে। কোম্পানিটি বাজার থেকে যে পরিমাণ টাকা তুলতে চেয়েছিল তার ১৯ দশমিক ৫২ গুণ বেশি আবেদন জমা পড়েছে।

কোম্পানিসূত্রে জানা গেছে, ৪৫ কোটি টাকা সংগ্রহের লক্ষ্যে গত ৯ নভেম্বর আবেদন নেওয়া শুরু করে কোম্পানিটি। সাধারণ বিনিয়োগকারীদের জন্য আবেদনের সময় ছিল ১৩ নভেম্বর পর্যন্ত। তবে প্রবাসী বিনিয়োগকারীদের জন্য এই সুযোগ ছিল ২২ নভেম্বর।

ব্যাংকের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে প্রায় ৫৭৮ কোটি টাকার আবেদন পড়েছে। আর ট্রেকহোল্ডার, মার্চেন্ট ব্যাংকের মাধ্যমে পড়েছে ৩০০ কোটি ৭১ লাখ টাকার আবেদন।

লটারির বিষয়ে কোম্পনির সচিব ফারহানা জামান অর্থসূচককে বলেন, আমরা আগামী ১১ ডিসেম্বর লটারি করার অনুমোতি চেয়ে বিএসইসিতে আবেদন করেছি। যদি বিএসইসি আমাদের আবেদন মন্জুর করে তাহলে ওই দিন লটারি হবে। আর আবেদন মন্জুর না করলে বিএসইসি যে দিনের জন্য অনুমোদন দেয় সেদিন হবে।

এর আগে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫২৮তম সভায় এ কোম্পানির আইপিও অনুমোদন দেওয়া হয়।

বিএসইসি সূত্র জানায়, কোম্পানিটি পুঁজিবাজারে ৪ কোটি ৫০ লাখ শেয়ার ছেড়ে ৪৫ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে কোম্পানিটি শেয়ার ইস্যু করবে।

২০১৪ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত অর্থ বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির প্রতি শেয়ারে আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ৭৮ পয়সা। নেট এসেট ভ্যালু (এনএভি) হয়েছে ১৮ টাকা ৩৮ পয়সা ।

কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে এএফসি ক্যাপিটাল ও ইম্পেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেড।

অর্থসূচক/জিইউ