চলন্ত বাসে উত্ত্যক্তকারীদের পেটালেন ২ বোন

0
91

চলন্ত বাসে উত্ত্যক্ত করায় ভারতের হরিয়ানা রাজ্যে ৩ যুবককে বেদম মারধর করেছেন ২ বোন। তাদের ওই মারধরের ভিডিওচিত্র ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়লে অনলাইন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়।

সাহসিকতার জন্য ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসে এ ২ বোনকে নগদ অর্থ পুরস্কার দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে হরিয়ানা রাজ্য সরকার।

সোমবার টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক খবরে আরও জানানো হয়, গত শুক্রবার কলেজের পরীক্ষা শেষে বাড়ি ফিরছিলেন আরতী (২২) ও পূজা (১৯)। বাসে ওঠার আগে থেকেই ৩ বখাটে তাদের উত্ত্যক্ত করা শুরু করে। বাসে ওঠার পর তারা ২ বোনকে লক্ষ্য করে নিজেদের মোবাইল নম্বর লিখে কাগজের টুকরো ছুড়ে মারে।

এরপর আজেবাজে মন্তব্য, নানান ধরনের অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করে। এমনকি তাদের গায়ে হাত পর্যন্ত দেয়। এসব দেখেও বাসের যাত্রীরা কেউ এগিয়ে আসেননি। এমনকি বাসচালক ও তার সহকারীও ছিলেন নির্বিকার।

সহ্য করতে না পেরে একপর্যায়ে ২ বোন ওই ৩ জনকে মারধর করেন। তাদের এ মারধরের দৃশ্য ধারণ করেন ওই বাসেরই এক নারী যাত্রী । পরে এ ঘটনায় তারা থানায় অভিযোগ দাখিল করেন।

পূজা বলেন, ‘বাসের ভেতরে তারা আমাদের উদ্দেশে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করে। আমাদের গায়ে হাত দেয় এবং আজেবাজে মন্তব্য করে। আমরা আর নিতে পারছিলাম না। সহ্যের সীমা ছাড়িয়ে যাওয়ায় একপর্যায়ে আমরা ওই ৩ জনকে মারধর শুরু করি। এ সময় একজন আমার বোনের হাত চেপে ধরে ও অন্যজন আমার ঘাড় ধরে। তখন আমার বোন তার কোমরের বেল্ট খুলে মারতে শুরু করে।’

২ বোনের অপরজন আরতী গণমাধ্যমকে জানান, ‘বাসে অন্যরা আমাদের বলে “তোমরা কিছু কোরো না…তারা তোমাদের ধর্ষণ করবে বা মুখে অ্যাসিড ছুঁড়ে মারবে। তারা তোমাদের মেরে ফেলবে”…আমরা ভয় পেয়েছিলাম, কিন্তু হাল ছাড়িনি।’

মারধরের ভিডিওচিত্র ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়লে তা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করে।

এর পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ গতকাল রোববার রাতে কুলদীপ, মোহিত ও দীপক নামের ৩ বখাটেকে আটক করে। এ ৩ জনই হরিয়ানার একটি গ্রামের বাসিন্দা। ওই দিন তারা সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে যাচ্ছিল।

এ ঘটনার পর ওই তিনজনের আবেদন বাতিলের ঘোষণা দিয়ে কর্তৃপক্ষ জানায়, ভারতের সেনাবাহিনীতে এ ধরনের লোকের কোনো স্থান নেই।

এআর/