আজিমপুরে চিরনিদ্রায় কাইয়ুম চৌধুরী

0
83
আজিমপুরে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন বরেণ্য শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী

রাজধানীর আজিমপুর কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন দেশের বরেণ্য চিত্রশিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী। সোমবার বিকেল পৌনে ৫টার দিকে তাকে দাফন করা হয়।

এর আগে বিকেল পৌনে ৪টার দিকে তার মরদেহ আজিমপুরের বাসভবন থেকে ছাপড়া মসজিদে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তার শেষ জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

আজিমপুরে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন বরেণ্য শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী
আজিমপুরে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন বরেণ্য শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী

গতকাল বনানীর আর্মি স্টেডিয়ামে বেঙ্গল ফাউন্ডেশন আয়োজিত উচ্চাঙ্গসংগীতের ৪র্থ দিনে উদ্বোধনী পর্বে মাইকের সামনে ঢলে পড়েন কাইয়ুম চৌধুরী। দ্রুত তাকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নেওয়া হয়। কিন্তু তার আগেই চিরতরে চলে যান তিনি।

চিকিৎসক জানিয়েছেন, মারাত্মক কার্ডিয়াক অ্যারেস্টে (হৃদরোগ) আক্রান্ত হয়েছিলেন তিনি। রাতে তার মরদেহ স্কয়ার হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হয়।

সেখান থেকে আজ সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদে কাইয়ুম চৌধুরীর মরদেহ নিয়ে যাওয়া হলে এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। বর্তমান শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনের কর্মীরা এই শিল্পীর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এরপর সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য দুপুর পৌনে ১২টার দিকে মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে।

সেখানে প্রথমে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে তাদের সামরিক সচিব ফুল দিয়ে তার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানান। এরপর সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর ও শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদসহ বিএনপি ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

এরপর একে একে বিভিন্ন সংগঠন ও দেশের সর্বস্তরের মানুষ কাইয়ুম চৌধুরীর প্রতি শ্রদ্ধা জানান। শেষে ১ মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এর পরই জানাজার জন্য তার মরদেহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে নেওয়া হয়। সেখান থেকে নেওয়া হয় আজিমপুরে তার বাসভবনে।

এআর/