‘ব্রিটেনে চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা কম বাংলাদেশিদের’

0
92
uk
ফাইল ছবি
uk
ফাইল ছবি

যুক্তরাজ্যের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়গুলোর মধ্যে মুসলমানরা চাকরির বাজারে সবচেয়ে বেশি বঞ্চনার শিকার হচ্ছে। এমনকি দক্ষিণ এশীয় মুসলিমদের মধ্যে চাকরি পাওয়ার তুলনামূলক সম্ভাবনা সবচেয়ে কম বাংলাদেশি বংশোদ্ভূতদের।

রোববার এক খবরে বিবিসিস জানিয়েছে, সম্প্রতি এক গবেষণায় এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

ব্রিটেনের ১৪টি জাতি এবং ধর্মীয় জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থানের সুযোগ নিয়ে ব্রিস্টল বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই গবেষক এ গবেষণা পরিচালনা করেছেন।

এতে দেখা গেছে, উচ্চ বেতনের ব্যবস্থাপক পদে অথবা পেশাদার হিসাবে চাকরি পেতে বিশেষ অসুবিধা হচ্ছে মুসলমানদের।

গবেষকরা জানিয়েছেন, মুসলমানদের একটি পশ্চাৎপদ সম্প্রদায় হিসাবে বিবেচনার চেয়ে, চাকরিদাতারা ক্রমশ তাদের হুমকি হিসাবে দেখছেন। মুসলমানদের দেখা হচ্ছে এমন একটি সম্প্রদায় হিসাবে যাদের কোনো আনুগত্য নেই।

সরকারী বিভিন্ন পরিসংখ্যান বিশ্লেষণ করে গবেষকরা আরও জানতে পেরেছেন, একই যোগ্যতা থাকা সত্বেও শ্বেতাঙ্গ খৃষ্টান ইংরেজের চেয়ে একজন মুসলিম পুরুষের চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা ৭৬ শতাংশ কম। মুসলিম নারীদের ক্ষেত্রে এই সংখ্যা ৬৫ শতাংশ।

এ সম্পর্কে গবেষক ড নাবিল খাত্তাব বলেন, “ক্রমবর্ধমান ইসলাম বিদ্বেষের কারণে মুসলমানদের এখন এদেশের বর্ণ, সংস্কৃতি এবং জাতিগত কাঠামোর সর্বনিম্নে ঠেলে দেওয়া হয়েছে।”

তিনি হুঁশিয়ার করে বলেন, সাম্প্রদায়িক এ বৈষম্য চলতে থাকলে, ব্রিটেনের বহুজাতিক সমাজের জন্য তা হুমকি হয়ে দাঁড়াতে পারে।

খাত্তাব আরও বলেন, এমনটি চলতে থাকলে মুসলিমদের মধ্যে ব্রিটিশ সমাজের মূলধারায় যুক্ত হওয়ার ব্যাপারে চরম অনীহা দেখা দিতে পারে।

গবেষণায় আরও দেখা গেছে, দক্ষিণ এশীয়দের মধ্যে চাকরি পাওয়ার তুলনামূলক সম্ভাবনা সবচেয়ে কম বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মুসলমানদের।

সম যোগ্যতার অমুসলিম একজন প্রার্থীর চেয়ে একজন বাংলাদেশি পুরুষ মুসলিমের চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা ৬৬ শতাংশ কম। এই সংখ্যা পাকিস্তানি মুসলিমদের ক্ষেত্রে ৫৯ শতাংশ।

তবে বাংলাদেশি মুসলিম মহিলাদের চিত্রটি অপেক্ষাকৃত ভালো।

গবেষণায় দেখা গেছে, ব্রিটেনে নিয়মিত বেতনের চাকরি পাওয়ার সুযোগ এবং সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি ইহুদিদের।

চাকরি করতে ইচ্ছুক এবং সক্ষম এরকম ৬৪ শতাংশ ইহুদিই কোনো নিয়মিত বেতনের চাকরি করছে। তারপরের স্থান ভারতীয় হিন্দুদের, ৫৭ শতাংশ।

সেই তুলনায় বাংলাদেশি মুসলিমদের মাত্র ২৩ শতাংশ এবং পাকিস্তানী মুসলিমদের ২৭ শতাংশ চাকরি করছে।