সাখাওয়াত ও শামসুদ্দিন কারাগারে

মানবতাবিরোধী অপরাধ

0
85
আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল

স্বাধীনতাযুদ্ধের সময়ে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে গ্রেপ্তার হওয়া জামায়াতে ইসলামীর নেতা সাখাওয়াত হোসেন ও এ.টি.এম. শামসুদ্দিন আহমেদকে কারাগারে পাঠিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।

international-crime-tribunal
আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল।

রোববার দুপুরে প্রথমে সাখাওয়াত হোসেন ও পরে শামসুদ্দিনকে ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়। শুনানির পর ট্রাইব্যুনাল তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বাধীন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এ আদেশ দেন।

গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর উত্তরখান থেকে যশোরের সাবেক সংসদ সদস্য সাখাওয়াত হোসেনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

১৯৯১ সালে জামায়াতে ইসলামীর পক্ষ থেকে সাখাওয়াত হোসেন যশোর-৬ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। পরে দল বদল করে তিনি বিএনপিতে যোগ দেন। ১৯৯৬ সালের নির্বাচনে পরাজিত হন তিনি। এরপর জাতীয় পার্টিতে যোগ দেন এবং জাতীয় পার্টির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যও ছিলেন তিনি।

গত বৃহস্পতিবার রাতে ভৈরব-ময়মনসিংহ আঞ্চলিক মহাসড়কের ময়মনসিংহ চৌরাস্তা এলাকা থেকে শামসুদ্দিন ওরফে শামসুকে গ্রেপ্তার করে কিশোরগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলার মধ্যপাড়া গ্রামের আবদুর রাজ্জাক মুন্সির ছেলে শামসুদ্দিন (৬০) এবং তার বড় ভাইয়ের নাম মো. নাসির উদ্দিনের (৬২)। গত বুধবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে রাষ্ট্রপক্ষের প্রধান কৌঁসুলির কার্যালয়ে তাদের ২ ভাইয়ের বিরুদ্ধে একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে তদন্ত সংস্থা।

এমই/