হত্যা-দুর্নীতির মামলায় খালাস হোসনি মোবারক

0
82
hosni mubarak
আদালত কক্ষে উপস্থিত হোসনি মোবারক
hosni mubarak
আদালত কক্ষে উপস্থিত হোসনি মোবারক

হত্যা মামলার পুনর্বিচারে সাবেক প্রেসিডেন্ট হোসনি মোবারকের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছে মিশরের আদালত। একইসাথে দুর্নীতির অভিযোগ আরেকটি মামলায়ও তাকে বেকসুর ঘোষণা করা হয়েছে।

এক খবরে বিবিসি জানিয়েছে, পুনর্বিচারে শনিবার মিশরের আদালত মোবারকের বিরুদ্ধে আন্দোলনকারীদের হত্যার অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছে। একই মামলায় অভিযুক্ত মোবারকের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হাবিব আল-আদলি এবং আরও ছয় নিরাপত্তা কর্মকর্তাকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন আদালত।

২০১১ সালের আরব বসন্তের সময়ে আন্দোলনকারীদের হত্যার ষড়যন্ত্রের অভিযোগে এ মামলায় ২০১২ সালে মোবারক এবং তার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছিল।

শতাধিক মানুষকে হত্যার অভিযোগ থেকে মোবারকসহ অভিযুক্তদের খালাস দেওয়ার পরপরই আদালত কক্ষে ব্যাপক শোরগোল লেগে যায়।

আল জাজিরা জানিয়েছে, একইদিন মোবারক এবং তার দুই ছেলের বিরুদ্ধে ইসরায়েল থেকে গ্যাস আমদানিতে দুর্নীতির অভিযোগও খারিজ করে দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, একনাগাড়ে প্রায় ৩০ বছর প্রেসিডেন্ট থাকার পর ২০১১ সালের তীব্র আন্দোলনের মুখে ক্ষমতা ছেড়ে দিতে বাধ্য হন হোসনি মোবারক। পরবর্তীতে তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার অপব্যবহারসহ গুম ও হত্যার অপরাধে মিশরের আদালত একাধিক মামলা দায়ের করা হয়।

এর মধ্য একটিতে আন্দোলনকারীদের হত্যার ষড়যন্ত্রের অভিযোগে তাকে যাবজ্জীবন দেওয়া হয়। গত বছর মিশরের আদালত এ মামলার পুনর্বিচারের আদেশ দেন।

এছাড়া সরকারি অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে আরেকটি মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় তাকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত। ৮৬ বছর বয়স্ক মোবারক বর্তমানে পুলিশ প্রহরায় মিশরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

এদিকে আন্দোলনাকারীদের হত্যার অভিযোগ থেকে মোবরককে খালাস দেওয়ায় হতাশা ব্যক্ত করেছেন নিহতদের স্বজনরা।

বর্তমান প্রেসিডেন্ট ও সাবেক সেনাপ্রধান আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসিকে মোবারকের সাথে মিলিয়ে আন্দোলনে নিহত এক নারীর স্বামী মাহমুদ ইব্রাহীম বলেন, নামটাই শুধু পাল্টেছে, বাকি সবই একই আছে।