লেনদেন ও সব ধরনের সূচক কমেছে

0
64
DSE-CSE
ডিএসই ও সিএসই’র লোগো

সপ্তাহের ব্যবধানে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) গড় লেনদেন ও সূচক দুটোই কমেছে। আলোচিত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ৪৮ শতাংশ। আর সিএসইতে কমেছে ৪২ দশমিক ১০ শতাংশ।

ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ধারাবাহিকভাবে লেনদেন ও সূচক কমার ফলে বিনিয়োগকারীদের আস্থায় চিড় ধরেছে। এতে তারা আগের মতো লেনদেন করছেন না। সেই সাথে বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) প্রস্তাবকে ঘিরে বাজারে নেতিবাঁচক প্রভাব পড়ছে।

আলোচিত সপ্তাহে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৬২৭ কোটি ৩১ লাখ ২২ হাজার টাকা। আগের সপ্তাহে এর পরিমাণ ছিল ৩ হাজার ১৩৫ কোটি ৬ লাখ ২৬ হাজার টাকা। এ হিসাবে সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ১ হাজার ৫০৭ কোটি ৭৫ লাখ টাকা বা ৪৮ দশমিক ০৯ শতাংশ।

অন্যদিকে আলোচিত সপ্তাহে ডিএসইর প্রধান সূচক বা ডিএসইএক্স সূচক ১২৭ পয়েন্ট বা ২ দশমিক ৫৯ শতাংশ কমেছে। আর ডিএসই৩০ সূচক কমেছে ২ দশমিক ৯৬ শতাংশ বা ৫৩ পয়েন্ট। আর ডিএসই শরীয়া সূচক কমেছে ৩ দশমিক ৪০ শতাংশ বা ৩৮ পয়েন্ট।

ডিএসই’র লেনদেনের মধ্যে ‘এ’ ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ার লেনদেন ছিল ৭৫ দশমিক ৫১ শতাংশ, ‘বি’ ক্যটাগরির লেনদেন ছিল ২ দশমিক ১২ শতাংশ, ‘এন’ ক্যাটাগরির লেনদেন ছিল ১৪ দশমিক ৩৭ শতাংশ এবং ‘জেড’ ক্যাটাগরির লেনদেন ছিল ৬ শতাংশ।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে ৩১৭টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৪৮টির, কমেছে ২২৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৪টির। আর লেনদেন হয়নি ১টি কোম্পানির।

আলোচিত সপ্তাহে সিএসইতে লেনদেন কমেছে ৯৪ কোটি ৭ লাখ ১০ হাজার টাকা বা ৪২ দশমিক ১০ শতাংশ। আর সিএএসপিআই সূচক কমেছে ৩ দশমিক ১৯ শতাংশ বা ৪৮৪ পয়েন্ট। সিএসই৩০ সূচক কমেছে ২ দশমিক ৪৬ শতাংশ বা ৩০৬ পয়েন্ট এবং সিএসসিএক্স কমেছে ৩ দশমিক ২৫ শতাংশ বা ৩০২ পয়েন্ট।

অর্থসূচক/জিইউ/এসএম