গাইবান্ধার ৩ গ্রাম অন্ধকারে

0
87
transformar
ফাইল ছবি

ট্রান্সফরমার বিকল হয়ে গাইবান্ধা সদর উপজেলার বোয়ালী ও রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের ৩টি গ্রাম টানা ৩ দিন ধরে বিদ্যুৎহীন রয়েছে।

বিদ্যুৎ না থাকায় বোয়ালি হরিপুর, রাধাকৃষ্ণপুর ও রামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের ভাটপাড়া গোপালপুর গ্রামের ৫ শতাধিক পরিবারের মানুষ ভোগান্তিতে পড়েছেন। সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছে প্রাথমিক সমাপনীর শিক্ষার্থী ও অন্যান্য শিক্ষাথীরা।

আর অন্ধকারের সুযোগে চোরের উপদ্রব বেড়ে গেছে বলে অভিযোগ করেছেন ওইসব গ্রামের মানুষ।

transformar
ফাইল ছবি

এলাকাবাসী জানান, মঙ্গলবার সকালে হঠাৎ করে বিআরডিবির ট্রান্সফরমারটি বিকল হয়ে পড়ে। ট্রান্সফরমারটি মেরামতের জন্য বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষকে জানানো হলেও কোনো কাজ হয়নি। উল্টো বিদ্যুৎ গ্রাহকদের কাছে ঘুষ দাবি করা হয়েছে।

পশ্চিম হরিপুর গ্রামের রানা মিয়া বলেন, টাকা না দিলে বিদ্যুতের লোকজন কোনো কাজই করের না। তারা যখনই আসে তখনই তাদের টাকা দিতে হয়। তারা ট্রান্সফরমার ঠিক করার জন্য টাকা দাবি করেছেন। টাকা না দেওয়ায় বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজন এখন পর্যন্ত কোনো ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি।

ভাটপাড়া গোপালাপুর গ্রামের রেজিয়া বেগম ও মধু মিয়া বলেন, বিদ্যুতের অভাবে এলাকার ব্যবসা-বাণিজ্য বন্ধ হওয়ার উপক্রম। ছেলেমেদের পড়াশোনায় ব্যাঘাত ঘটছে। রাতের অন্ধকারে চোরের উপদ্রব বেড়ে যাওয়ায় রাত জেগে গ্রামের লোকজন বাড়িঘর পাহারা দিচ্ছে।

একই গ্রামের মধু মিয়া জানান, এর আগেও একবার ট্রান্সমিটারটি বিকল হয়। পরে দীর্ঘদিনেও মেরামত করেনি কর্তৃপক্ষ। এ নিয়ে ট্রান্সফরমারের দাবিতে বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ করলে ট্রান্সফরমারটি পাল্টিয়ে নতুন ট্রান্সফরমার বসানো হয়। বর্তমানে বিদ্যুৎ না থাকায় গ্রামগুলো সন্ধ্যার পর ভূতুড়ে অবস্থা বিরাজ করছে।

এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে গাইবান্ধা বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জুলকার নাইন সাফির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ঘুষ দাবির কথা অস্বীকার করে জানান, অতিরিক্ত ট্রান্সফরমার না থাকায় কোনো ব্যবস্থা নেয়া সম্ভব হচ্ছে না।

তবে, ট্রান্সফরমার চেয়ে বিদ্যুৎ বিভাগে আবেদন করা হয়েছে। দ্রুত ওই এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

এআর/