আয়কর রিটার্ন দাখিলের সময় আর বাড়ছে না

0
115
এনবিআর ভবন
এনবিআর ভবন
এনবিআর ভবন
এনবিআর ভবন

২০১৩-১৪ অর্থবছরের আয়কর রিটার্ন দাখিলের সময় শেষ হচ্ছে ৩০ নভেম্বর। দুই দফা সময়সীমা বাড়লেও এবার আর তা না বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

এ লক্ষে নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই করদাতাদের সেবা দিতে আগামী শনিবার দেশের সব কর অফিস খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

এনবিআরের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা সৈয়দ এ মু’মেন অর্থসূচককে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

সৈয়দ এ মু’মেন বলেন, গত কয়েক বছর ধরে নানান দফায় সময় বাড়িয়ে ডিসেম্বর পর্যন্ত আয়কর রিটার্ন দাখিলের সময় দিয়ে আসছে এনবিআর। এ সুযোগ নিয়ে অনেক করদাতাই শেষ সময় এসে রিটার্ন দাখিল করেন। এতে এনবিআরের আয়করের পরিকল্পনায় কিছুটা ব্যঘাত ঘটে।

তিনি বলেন, আয়কর বিভাগের কাজে গতি আনতে এবার শুধু আয়কর সপ্তাহের মধ্যে রিটার্ন দাখিলের প্রক্রিয়া শেষ করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়। বিভিন্ন সংগঠন ও ব্যবসায়ীদের দাবির মুখে এ সময়সীমা দুই দফা বাড়িয়ে ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত করা হয়। তবে এরপর এ সময়সীমা আর বাড়ানো হবে না।

এ লক্ষে আগামী শনিবার এনবিআরের সব আয়কর অফিস খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এনবিআর। সেই সাথে আয়কর অফিসের নিকটবর্তী সব ব্যাংকের শাখা খোলা রাখার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংককে অনুরোধ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন এনবিআরের তথ্য কর্মকর্তা।

এনবিআর সূত্র জানায়, আয়কর সপ্তাহ উপলক্ষে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আয়কর রিটার্ন দাখিলের শেষ সময় নির্ধারিত ছিল। পরে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইসহ বিভিন্ন পেশাজীবী ও বাণিজ্য সংগঠনের দাবির প্রেক্ষিতে রিটার্ন দাখিলের সময়সীমা বাড়িয়ে প্রথম দফায় ২ নভেম্বর পর্যন্ত করা হয়েছিল।

তবে ঈদুল আজহা ও পূজার ছুটিসহ নানা কারণে করদাতারা যথাসময়ে চলতি করবর্ষের রিটার্ন জমা দিতে না পারায় তাদের দাবির মুখে দ্বিতীয় দফায় এ সময় বাড়িয়ে তা ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত করা হয়।

সূত্র জানায়, এরপরও বিভিন্ন সংগঠন থেকে সময় বাড়ানোর দাবি আসলেও তা আর বাড়াবে না এনবিআর। তবে যে সব করদাতারা নির্ধারিত সময়ে আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে পারেননি তাদের জন্য আয়কর অধ্যাদেশ প্রযোজ্য হবে। রিটার্ন জমা না দেওয়ার পিছনে যৌক্তিক কারণ থাকলে তিনি কর অঞ্চলে আবেদন করে যেকোনো সময় তা জমা দিতে পারবেন।

প্রসঙ্গত, আয়কর অধ্যাদেশ অনুযায়ী, টিআইএনধারীদের আয়কর বিবরণী জমা দেয়া বাধ্যতামূলক। আয়কর বিবরণী না দিলে জেল ও জরিমানার বিধান রয়েছে আয়কর অধ্যাদেশে। নির্ধারিত সময়ে আয়কর বিবরণী জমা না দিলে এককালীন ১ হাজার টাকা এবং পরবর্তী প্রতিদিনের জন্য বাড়তি ৫০ টাকা হারে জরিমানার বিধান রয়েছে। তবে যৌক্তিক কারণ দেখিয়ে কেউ সংশ্লিষ্ট কর অঞ্চলের সহকারী কর কমিশনার বরাবর আবেদন করলে নির্ধারিত সময়ের পরও বিবরণী জমা নেয় এনবিআর।