বাণিজ্য মেলায় পার্টটাইম জব

0
168
Sales_Girl_Trade_fair
বাণিজ্য মেলায় মহিলা বিক্রয় কর্মী। ফাইল ছবি

প্রতি বছরের মতো এবারও আগামী ১ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে মাসব্যাপী ‘ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা-২০১৫’। এই মেলায় দেশি-বিদেশি কয়েকশত প্রতিষ্ঠান তাদের পণ্য প্রদর্শন ও বিক্রি করে থাকে।

প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের পণ্যের গুণগতমান ক্রেতাদের কাছে তুলে ধরতে ও পণ্য বিক্রি করতে খণ্ডকালীন চুক্তিভিত্তিক কর্মী নিয়োগ দেয়। মেলা শুরুর এক-দেড় মাস আগেই কর্মী বাছাই ও নিয়োগ পর্ব শেষ করে কোম্পানিগুলো।

Sales_Girl_Trade_fair
বাণিজ্য মেলায় মহিলা বিক্রয় কর্মী। ফাইল ছবি

বাণিজ্য মেলার এই খণ্ডকালীন চাকরির বিষয়ে নানা তথ্য জানাচ্ছে অর্থসূচক.কম।

যোগ্যতা:

বাণিজ্য মেলায় ১ মাসের কাজের জন্য পণ্য বিপণনে অভিজ্ঞতা থাকতেই হবে- এমন বাধ্যবাধকতা নেই। তবে প্রার্থীর কাজের প্রতি আগ্রহ, সহজ-সাবলীলভাবে পণ্যের গুণাগুণ তুলে ধরা, শুদ্ধ ও মিষ্ট ভাষায় কথা বলা, ইংরেজিতে কথা বলার দক্ষতা, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা, যেকোনো পরিস্থিতিতে মানিয়ে নেওয়ার দক্ষতার বিষয় যাচাই করা হয়।

নাদিয়া ফার্নিচারের হেড অব মার্কেটিং মো. আহসান আজীজ সোহাগ অর্থসূচককে বলেন, ১ মাসের খণ্ডকালীন চাকরির জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যমী ও স্মার্ট তরুণ-তরুণীরাই আমাদের ১ম পছন্দ। তবে যারা ইংরেজিতে পারদর্শী এবং শুদ্ধ উচ্চারণ করতে পারেন তাদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়।

২০১৪ সালে বাণিজ্য মেলায় প্রথমবারের মতো কাজ করেছিলেন ইডেন মহিলা কলেজের শিক্ষার্থী আনিকা ইসলাম।

তিনি বলেন, গত বছর বাণিজ্য মেলায় কাজ করার আগে এই কাজের কোনো অভিজ্ঞতা ছিল না। কিন্তু অনেকের সঙ্গে কাজ করতে গিয়ে কর্পোরেট জব সম্পর্কে অনেক কিছু ‍শিখেছি। বিভিন্ন কর্মক্ষেত্রের পরিবেশ সম্পর্কে জানতে পেরেছি। এটা চাকরি জীবনে কাজে লাগবে।

তথ্যসূত্র:

বাণিজ্য মেলায় খণ্ডকালীন চাকরি পেতে মেলায় অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে। কারণ অনেক কোম্পানি সরাসরি বিক্রয়কর্মী নিয়োগ দেয়। এক্ষেত্রে কিছু কিছু কোম্পানি সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে থাকে। এক্ষেত্রে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সিভি জমা দিতে হয়।

বর্তমানে অনেক প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইটে বাণিজ্যমেলায় কর্মী নিয়োগ সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য দেওয়া থাকে। সেখান থেকে ঠিকানা নিয়ে যোগাযোগ করা যায়। আবার কোনো কোনো প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বে থাকে ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানিগুলো।

এছাড়া বিভিন্ন এজেন্সির মাধ্যমেও লোক নিয়োগ দেওয়া হয়। এজেন্সিগুলো নিজস্ব সিভি ব্যাংক থেকে আগ্রহীদের সিভি বাছাই করে কোম্পানিগুলোর কাছে বিক্রয়কর্মী করে। চূড়ান্ত বাছাইয়ের পর মেলা শুরুর আগে প্রার্থীকে বিক্রয় প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

বাণিজ্য মেলায় ২ বছর কাজের অভিজ্ঞতা আছে নর্দান বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সুমী আক্তারের। তিনি বলেন, ২/৩ মাস আগে থেকে বিভিন্ন কোম্পানির ওয়েব সাইট দেখে এবং ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগ করে সিভি জমা দিয়েছি। আগে মেলায় কাজের অভিজ্ঞতার কথা অবশ্যই সিভিতে উল্লেখ করতে হবে।

সিঙ্গারের সহকারী ব্যবস্থাপক (প্রডাকশন) জাহিদুল হাসান বলেন, মেলায় খণ্ডকালীন কাজের জন্য সারা বছর সিভি জমা হয়। ব্যক্তিগত যোগাযোগেও কর্মী নিয়োগের সুপারিশ পাওয়া যায়। সেখান থেকে উপযুক্তদের বাছাই করা হয়। নিয়োগের আগে তাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়।

এজেন্সির ঠিকানা:

মার্কেট এক্সেস, ইন্টিগ্রেটেড মার্কেটিং সার্ভিস লিমিটেড, গ্লোবাল অ্যাড মিডিয়া, স্পটলাইট ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড, উইন্ডমিল অ্যাডভারটা লিমিটেড, অ্যাডকম ইত্যাদি কোম্পানি বাণিজ্য মেলার খণ্ডকালীন কাজের জন্য সিভি দেওয়ার আহ্বান জানায়।

বেতন ও অন্যান্য:

মেলায় ১ মাসের খণ্ডকালীন চাকরির জন্য সর্বনিম্ন সম্মানী দেওয়া হয় ১৫ হাজার টাকা। সকাল আর বিকেল নাশতা এবং দুপুরের খাবার সরবরাহ করা হয়ে কোম্পানির পক্ষ থেকে। কয়েকটি কোম্পানি তাদের কর্মীদের যাতায়াত সুবিধাও প্রদান করে।

মেলায় ডিউটি করার জন্য প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে নির্দিষ্ট পোশাক দেওয়া হয়। এছাড়া কোনো কোনো কোম্পানি কাজের অভিজ্ঞতা সনদও প্রদান করে।

উপকারিতা:

শিক্ষাজীবন শেষে কর্মজীবনে শুরুর আগে নিজের অবস্থান তুলে ধরতে বাণিজ্য মেলা একটি বড় প্ল্যাটফর্ম। মেলায় ক্রেতা-দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড় সামাল দিয়ে কোম্পানির পণ্য বিক্রয় বা উপস্থাপন অবশ্যই বড় চ্যালেঞ্জ। এ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে গিয়ে অনেক অভিজ্ঞতা অর্জনও সম্ভব; যা কর্মজীবনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

একটি বেসরকারি মেডিকেলে হিসাবরক্ষক পদে কর্মরত মো. শাহজাহান বলেন, সাউথ ইস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী থাকাকালে বাণিজ্য মেলায় খণ্ডকালীন কাজ করেছিলাম। মেলায় ক্রেতা-দর্শনার্থীর চাপ সামলে দায়িত্ব পালনের অভিজ্ঞতা আমার বর্তমান কর্মক্ষেত্রে বেশ উপকারে আসছে। আমি মনে করি, কর্মক্ষেত্রে প্রবেশের আগে অভিজ্ঞতা অর্জনের ভালো সুযোগ এটি।

সময়:

বাণিজ্য মেলায় সার্বক্ষণিক ও খণ্ডকালীন ২ ভাবে কাজের জন্য কর্মী নিয়োগ দেওয়া হয়। সার্বক্ষণিক বলতে সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত। আর খন্ডকালীন বলতে দিনে ২ শিফটকে বুঝানো হয়। এক্ষেত্রে দিনের ১ম শিফটের কাজ চলে ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। ২য় শিফটে বিকাল ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত কাজ করতে হয়।

জেইউ/