স্বামী-স্ত্রী মিলে ২১২ বছর…

0
137
spouse
karamn 2
জীবনের ইনিংসে ২১২ বছর পার করে করম-কারতারি জুটি এখনও অপরাজিত আছেন।

স্বামী করম চাদেঁর বয়স ১০৯। স্ত্রী কারতারি চাঁদের ১০৩। দুজনের সম্মিলিত বয়স ২১২ বছর। এবার একই দিনে নিজেদর জন্মদিন উদযাপন করলেন এই দম্পতি।

গত রোববার যুক্তরাজ্যের ব্র্যাডফোর্ডের বাড়িতে পরিবারের ৪ প্রজন্মের সাথে জন্মদিনের আনন্দ ভাগ করে নেন তারা। ভারতীয় বংশোদ্ভূত এই দম্পতিকে যুক্তরাজ্যের সবচেয়ে দীর্ঘ দাম্পত্য জীবনের অধিকারী স্বামী-স্ত্রী হিসেবে দেখা হয়। তাদের দাম্পত্য জীবন প্রায় ৯০ বছরের।

karam
শততম জন্মদিনে ছেলে-মেয়েদের সঙ্গে করম চাঁদ ও তার স্ত্রী কারতারি চাঁদ।

বিশ্বজুড়ে মানুষের গড় আয়ু নিয়ে দুশ্চিন্তার অন্ত না থাকলেও এই দম্পতিকে দেখতে এখনও খুব শক্ত, সবল ও সুস্বাস্থ্যের অধিকারীই মনে হয়। বয়সের ভারে তারা এতটুকুও ভেঙে পড়েননি। সমবয়সীদের অনেকেই যখন পরপারে চলে গেছেন অথবা ওপারের ডাকের অপেক্ষায় আছেন ঠিক তখন এই সুখী দম্পতি বিবাহ বার্ষিকী উদযাপনসহ বেশ সুখেই দিন কাটাচ্ছেন। পরপারে যাওয়ার চিন্তা বাদ দিয়ে যুবকদের দিব্যি উপদেশ দিয়ে বেড়াচ্ছেন। জানাচ্ছেন সুস্থ থাকার নানা টনিক।

এই বয়সেও সুস্থ থাকার রহস্য কি তা বলতে গিয়ে করম চাঁদ বলেন, ‘আমার মন যা চেয়েছে আমি তাই খেয়েছি, তবে তা পরিমিত। আমি কখনও জীবনকে উপভোগ করা থেকে বিরত থাকিনি’।

এই দম্পতি ১৯২৫ সালে ভারতে বিয়ে করে ষাটের দশকে যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমিয়ে ছিলেন। শতবছরে পা রাখা কারতারি চাঁদ দেশটির প্রথা অনুযায়ী বৃটেনের রানীর চিঠিও পেয়েছেন।

chand
ছেলে-মেয়েদের সঙ্গে ১৯৭১ সালে। কারতারি চাঁদ (সর্ববাম) ও করম চাঁদ (বাঁ থেকে তৃতীয়)

এই বয়সেও মহিলা বেশ স্বাস্থ্য সচেতন। কারতারি বলেন, ‘আমরা সবসময়ই ভাল ও স্বাস্থ্যকর খাবার খাই। দুধ, ঘি ও দধি ছাড়া কোন কৃত্রিম খাবার গ্রহণ করি না’।

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা জানি ৯০ বছর এক সঙ্গে দাম্পত্য জীবনযাপন করা এক আশীর্বাদ। তবে আমরা এও জানি, যখন ডাক আসবে তখন চলে যেতে হবে। আর সবকিছুই নির্ভর করছে ঈশ্বরের ইচ্ছার উপর। তবে আমরা সত্যিকার অর্থেই খুব সুখী জীবনযাপন করছি’।

করম চাঁদের জন্ম ১৯০৫ সালে, ভারতের উত্তরাঞ্চলের এক নিভৃত পল্লীতে। অপরদিকে কারতারি পাঞ্জাবে এক শিখ পরিবারে ১৯১২ সালে জন্ম নিয়ে ছিলেন। সূত্র: ডেইলি মেইল

এআর/