সার্ক শীর্ষ সম্মেলন শুরু

0
96
city hall
কাঠমাণ্ডুর সিটি হল।

‘নিবিড় যোগাযোগ, শান্তি ও সমৃদ্ধি’র প্রত্যাশা নিয়ে নেপালের রাজধানী কাঠমাণ্ডুতে শুরু হলো অষ্টাদশ সার্ক শীর্ষ সম্মেলন।

বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে ৯টায় কাঠমাণ্ডুর এক্সিবিশন রোডের ‘রাষ্ট্রীয় সভাগৃহে’ নেপালের জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে সম্মেলনের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়।

city hall
কাঠমাণ্ডুর সিটি হল।

সদস্য রাষ্ট্রগুলোর পক্ষে মঙ্গল প্রদীপ জ্বেলে নেপালের প্রধানমন্ত্রী সুশীল কৈরালা উদ্বোধনী ভাষণ দেন।

সদস্য দেশগুলোর মধ্যে রেল ও সড়কপথে যোগাযোগ বৃদ্ধি, জ্বালানি নিরাপত্তা এবং জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলার বিষয়গুলো গুরুত্ব পাচ্ছে এবারের সম্মেলনে।

এরপর সার্কেভুক্ত দেশের নেতাদের উপস্থিতিতে জোটের বিদায়ী চেয়ারম্যান মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিন আব্দুল গাইয়ুম কাঠমাণ্ডু সম্মেলনের উদ্বোধন ঘোষণা করেন। রীতি অনুযায়ী তিনি এবারের স্বাগতিক দেশ নেপালের প্রধানমন্ত্রী সুশীল কৈরালার হাতে দায়িত্ব হস্তান্তর করেন।

২ বছর স্থগিত থাকার পর কড়া নিরাপত্তার মধ্যে এবারের সার্ক সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে নেপালে। সম্মেলনে অংশ নিতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাহিন্দ রাজাপাকসে, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নেওয়াজ শরিফ, ভুটানের প্রধানমন্ত্রী শেরিন তোবগে, মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিন আব্দুল গাইয়ুম ও আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ গানি গতকাল মঙ্গলবার কাঠমাণ্ডু পৌঁছান।

সার্কের মহাসচিব অর্জুন বাহাদুর থাপা এবং যুক্তরাষ্ট্র, চীন ও জাপানসহ ৯টি পর্যবেক্ষক দেশের প্রতিনিধি এ সম্মেলনে অংশ নিচ্ছেন। সদস্য রাষ্ট্রগুলোর সরকার প্রধানেরা উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখবেন। পর্যবেক্ষক প্রতিনিধিরাও বক্তব্য দেবেন এই অনুষ্ঠানে।

উদ্বোধনী ও সমাপনী অধিবেশনের মধ্যে বিভিন্ন সময়ে অনানুষ্ঠানিক দ্বি-পক্ষীয় বৈঠকেও মিলিত হবেন সার্ক নেতারা।

সার্ক সম্মেলন উপলক্ষে বুধবার ও বৃহস্পতিবার নেপালে সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। যান চলাচলেও কঠোর নিরাপত্তা আরোপ করা হয়েছে।

৩য় বারের মতো সার্ক শীর্ষ সম্মেলনের আয়োজন করছে নেপাল। এর আগে ১৯৮৭ ও ২০০২ সালে সেখানে মিলিত হন সার্ক নেতারা।

এমই/