ব্রহ্মপুত্রে চীনের বাঁধ নির্মাণ সম্পন্ন

0
106
Zangmu Hydropower Station

Zangmu Hydropower Stationতিব্বতে ব্রহ্মপুত্র নদের ওপর একটি বাঁধ নির্মাণের কাজ সম্পন্ন হয়েছে বলে ঘোষণা দিয়েছে চীন। বাংলাদেশ এবং ভারতের আপত্তির পরেও চীন জলবিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য বাঁধটি নির্মাণ করেছে।

সোমবার এক খবরে টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, রোববার থেকে এ কেন্দ্রে আংশিকভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হয়েছে।

চীনে ব্রহ্মপুত্র নদ ইয়ার্লুং জ্যাংবু নামে পরিচিত।

এ নদের উজানে বাঁধ নির্মিত হলে ভাটিতে আকস্মিক বন্যা, ভূমি ধস এবং খরার আশঙ্কায় আপত্তি জানিয়ে আসছে বাংলাদেশ এবং ভারত।

এছাড়াও বাঁধের ফলে ব্রহ্মপুত্র অববাহিকার বাস্তুসংস্থানে বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে আশঙ্কা করছেন পরিবেশবাদীরা।

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, বাঁধ নির্মাণের ফলে ব্রহ্মপুত্রে পরিবেশগত পরিবর্তন চিহ্নিত করতে সম্প্রতি একটি কমিশন গঠনের ঘোষণা দিয়েছে ভারত।

চীনের পিপলস ডেইলির বরাত দিয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, রোববার থেকে এ নদের ওপর নির্মিত তিব্বতের বৃহত্তম জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র জ্যাংমু হাইড্রোপাওয়ার স্টেশনের প্রথম সেকশন পরীক্ষামূলকভাবে চালু করা হয়েছে। আগামী বছরের মধ্যেই এর বাকি পাঁচ সেকশনের নির্মাণ কাজ শেষ হবে।

বেইজিং জানিয়েছে, তিব্বতের বিদ্যুৎবঞ্চিত এলাকায় উন্নয়নের ত্বরাণিত করতে এ বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করা হয়েছে।

brahmaputra and china
উৎপত্তিস্থল থেকে ব্রহ্মপুত্রের গতিপথ এবং চীনের পরিকল্পিত বাঁধ (ফাইল ছবি)

সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৩.৩ কি.মি. ওপরে নির্মিত এ কেন্দ্র থেকে বছরে ২৫০ কোটি কিলোওয়াট-আওয়ার বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে চীনা সংবাদ মাধ্যমগুলো।

চীন সরকার এ প্রকল্পকে বিশাল বলে আখ্যায়িত করে জানিয়েছে, চার বছরে নির্মাণ কাজ শেষে এটিতে ৫ লাখ ১০ হাজার কিলোওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদিত হবে।

ব্রহ্মপুত্রের উজানে বাঁধ দিয়ে জ্যাংমুসহ মোট পাঁচটি প্রকল্পের মাধ্যমে মোট ২ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে দেশটি।

প্রসঙ্গত, হিমালয়ে উৎপন্ন হয়ে ব্রহ্মপুত্র নদী চীনের তিব্বত দিয়ে ভারতের অরুণাচল এবং আসামের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। এ নদের দৈর্ঘ্য প্রায় ২৯০০ কিলোমিটার। যমুনা ব্রহ্মপুত্রের প্রধান শাখা নদী।