বন্ধ্যাকরণের ওষুধে ছিল ইঁদুর মারার বিষ

0
111
indiasterilis
বন্ধ্যাকরণের রোগিকে হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছে। ছবি বিবিসি।
indiasterilis
বন্ধ্যাকরণের রোগিকে হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছে। ছবি বিবিসি।

ভারতের ছত্তিশগড়ে বন্ধ্যাকরণ অস্ত্রোপচারের পর যে ১৫ জন নারীর মৃত্যু হয়েছে ও আরও অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন, তাদের ওপর প্রয়োগ করা ওষুধে বিষাক্ত পদার্থ ছিল বলে নিশ্চিত করেছে রাজ্য সরকার।

ছত্তিশগড় রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী অমর আগরওয়াল জানিয়েছেন, তদন্ত রিপোর্টে বলা হয়েছে, ওই ওষুধে জিঙ্ক ফসফাইডের অস্তিত্ত্ব ছিল; যা ইঁদুর মারার বিষে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

তবে এর ফলে অস্ত্রোপচারগুলো করেছিলেন যে চিকিৎসক, তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ খারিজ হয়ে যাচ্ছে না বলেও তিনি মন্তব্য করেছেন।

তদন্ত রিপোর্টে জানা গেছে, সরকারি স্বাস্থ্য হাসপাতালে তাদের যে সিপ্রোসিন-ফাইভ হান্ড্রেড নামে ওষুধ দেওয়া হয়েছিল তাতে ছিল ইঁদুর মারার বিষ। ওষুধগুলির নমুনা ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা করার পর সরকারকে যে রিপোর্ট দেওয়া হয়েছে, তাতেই এই বিষাক্ত পদার্থের অস্তিত্ত্ব প্রমাণিত হয়েছে।

ভারতের একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের কাছে রোববার এ কথা স্বীকার করেছেন রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী অমর আগরওয়াল।

তিনি বলেন, ”আমরা সব রিপোর্ট পেয়ে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছি। এখন এই রিপোর্টের ভিত্তিতে তারা তদন্ত করবে। রিপোর্টে বলা হয়েছে যে ওই ওষুধে বিষাক্ত রাসায়নিক ছিল।”

যখন তাকে নির্দিষ্টভাবে প্রশ্ন করা হয়, জিঙ্ক ফসফাইড ছিল কি না, তিনি বলেন বিষাক্ত পদার্থের মধ্যে ওটাও পড়ছে। সূত্র: বিবিসি।