যত দিন ইচ্ছা থাকতে পারবেন অ্যাসাঞ্জ: ইকুয়েডর

0
89
Julian-Assange-Ecuador-asylum
২০১২ সাল থেকে লন্ডনে ইকুয়েডর দূতাবাসে অন্তরীণ আছেন জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ। (ফাইল ছবি)
Julian-Assange-Ecuador-asylum
২০১২ সাল থেকে লন্ডনে ইকুয়েডর দূতাবাসে অন্তরীণ আছেন জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ। (ফাইল ছবি)

যুক্তরাজ্যে অবস্থিত ইকুয়েডর দূতাবাসে যত দিন খুশি ততদিন থাকতে পারবেন উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ।

এক খবরে এএফপি জানিয়েছে, সুইডেনে অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করে করা আবেদন খারিজ হয়ে যাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে শুক্রবার ইকুয়েডরের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে এ কথা জানানো হয়।

২০১০ সালে সুইডেন ভ্রমণের সময় দুই নারীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে এ পরোয়ানা জারি করা হয়েছিল।

যদিও অ্যাসাঞ্জ শুরু থেকেই এ অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন।

ইকুয়েডর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে প্রকাশিত বিবৃতিতে জানানো হয়, নিরাপদ আস্তানা না পাওয়া পর্যন্ত রাজনৈতিক আশ্রয়ে থাকা অ্যাসাঞ্জ যত দিন প্রয়োজন মনে করবেন, তত দিন এভাবে থাকতে পারবেন।

তবে সুইডেনের কর্মকর্তারা চাইলে লন্ডনে ইকুয়েডর দূতাবাসে গিয়ে বা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অ্যাসাঞ্জকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারবেন।

অ্যাসাঞ্জ নিজেও সুইডেনের আইনজীবীদের লন্ডনে গিয়ে, ভিডিওর মাধ্যমে বা বিকল্প কোনো উপায়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করার কথা জানিয়েছিলেন।

তবে এ সংক্রান্ত আবেদনটিও খারিজ করে দিয়েছেন আদালত।

অ্যাসাঞ্জের আশঙ্কা, সুইডেনে আদালতের মুখোমুখি হলে তাকে যুক্তরাষ্ট্রের হাতে তুলে দেওয়া হবে। গুরুত্বপূর্ণ এবং সংবেদনশীল নথি ফাঁসের অভিযোগে তাকে বিচারে দাঁড় করাবে মার্কিন কর্তৃপক্ষ।

এ আশঙ্কায় ২০১২ সাল থেকে লন্ডনের ইকুয়েডর দূতাবাসে অন্তরীণ আছেন অ্যাসাঞ্জ।

এর আগে ২০১০ সালে উইকিলিকসের মাধ্যমে আড়াই লাখ মার্কিন কূটনৈতিক তারবার্তা ও পাঁচ লাখ সামরিক গোপন নথি ফাঁস করে আলোড়ন সৃষ্টি করেছিলেন তিনি।