যুক্তরাষ্ট্রে বৈধতা পাচ্ছে ৪৭ লাখ অভিবাসী

0
82
U.S. President Obama
মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বৃহস্পতিবার এক টেলিভিশনে ভাষণে এ ঘোষণা দেন।
U.S. President Obama
মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বৃহস্পতিবার এক টেলিভিশনে ভাষণে এ ঘোষণা দেন। (রয়টার্স)

যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন নীতিতে বড় ধরনের পরিবর্তন এনে এক নির্বাহী আদেশে অবৈধভাবে বসবাসরত ৪৭ লাখ অভিবাসীকে বৈধ হওয়ার সুযোগ দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। তাদেরকে আর যুক্তরাষ্ট্র ছাড়তে হবে না; সেখানে বৈধভাবে কাজ করার সুযোগ পাবেন তারা।

এক খবরে বিবিসি জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে দেওয়া এক টেলিভিশনে ভাষণে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা নির্বাহী আদেশের মাধ্যমে এই অভিবাসীদের বৈধতা দেওয়ার পরিকল্পনা ঘোষণা করেন।

এদিকে মার্কিন পার্লামেন্টের প্রতিনিধি পরিষদে সংখ্যাগরিষ্ঠ রিপাবলিকানরা জানিয়েছে, কংগ্রেসকে ছাড়া এ ধরনের আদেশ জারি প্রেসিডেন্টের এখতিয়ার বহির্ভূত। এ ধরনের আদেশ তিক্ততা বাড়াবে।

যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমানে প্রায় এক কোটি ১০ লাখ বিদেশি নাগরিক অবৈধভাবে বসবাস করছেন। সম্প্রতি এই অবৈধ অভিবাসীদের একটি অংশকে সরকার দেশে ফেরত পাঠানোর উদ্যোগ নিলে পরিস্থিতি জটিল আকার ধারণ করে, কেননা তাদের একটি বড় অংশের সন্তানরা বৈধ নাগরিক হিসাবে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করছেন।

ওবামার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী যে ৪৭ লাখ অবৈধ অভিবাসী যুক্তরাষ্ট্রে বৈধভাবে বসবাসের অনুমতি পাবেন, তাদের মধ্যে ৪৪ লাখ বাবা-মাও থাকবেন, যাদের সন্তানরা যুক্তরাষ্ট্রের বৈধ নাগরিক বা বসবাসকারী।

তারা এখন যুক্তরাষ্ট্রে বৈধভঅবে বসবাসের আবেদন করতে পারবেন এবং কাজের সুযোগ পাবেন। তবে তারা ভোটাধিকার বা সরকারি স্বাস্থ্যসেবা ও বীমা সুবিধা পাবেন না।

 US-migrant-reformation-
ওবামার ভাষণ শোনার সময় প্রার্থনারত একদল অবৈধ অভিবাসী (রয়টার্স)

ওবামার নির্বাহী আদেশের সুযোগ গ্রহণকারীদের আবেদনের মাধ্যমে নিবন্ধন করতে হবে এবং তাদের কর দিতে হবে। যুক্তরাষ্ট্রে তারা সহজে চলাচল করতে পারবেন। গাড়ি চালানোর লাইসেন্স ও ব্যাংক হিসাব খোলাসহ ন্যূনতম সুবিধাগুলো তাদের জন্য সম্প্রসারিত হবে। উচ্চ ডিগ্রিধারী ও দক্ষ প্রযুক্তি-কর্মীদের জন্য বৈধতার এ সুযোগ সম্প্রসারিত করা হয়েছে।

ওবামা তার ভাষণে বলেন, ১ কোটি ১০ লাখ অবৈধ অভিবাসীর সবাইকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বের করে দেওয়ার কথা ভাবা বাস্তবসম্মত হবে না। আমার প্রস্তাব সাধারণ কাণ্ডজ্ঞান ও মধ্যপন্থার অবস্থান থেকে জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠা করা।

মার্কিন অভিবাসন ব্যবস্থার সংস্কার প্রয়োজন উল্লেখ করে তিনি বলেন, আজ আমাদের অভিবাসন ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। এটা সবাই জানে।…. বছরের পর বছর ধরে এ পরিস্থিতি চলে আসছে। কিন্তু আমরা এ বিষয়ে এ নিয়ে যথেষ্ট কাজ করিনি।

তিনি বৈধতা পেতে যাওয়া অভিবাসীদের উদ্দেশ্য ওবামা বলেন, ছায়া থেকে বেরিয়ে আসুন, বৈধভাবে বসবাসের সুযোগ নিন।

ভাষণে ওবামা বলেন, তার এ নির্বাহী পদক্ষেপ অবৈধ ব্যক্তিদের প্রতি কোনো সাধারণ ক্ষমা নয়। সম্প্রতি যারা যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করে অবৈধভাবে বাস করছেন, তারা এ সুবিধা পাবেন না। ভবিষ্যতে যারা অভিবাসন আইন লঙ্ঘন করবেন, তাদের জন্য এ ঘোষণা কার্যকর নয়। যেসব অবৈধ অভিবাসীর নামে মামলা আছে ও দণ্ডিত অপরাধী, তারা এ আদেশের কোনো সুবিধা নিতে পারবেন না।

 US-migrant-reformation
ওবামার ঘোষণার পর উৎফুল্ল একদল শ্রোতা (রয়টার্স)

যাদের নামে বিতাড়নের আদেশ আছে, তাদের বিষয়েও ঘোষণায় কিছু বলা হয়নি।

ওবামা বলেন, এই পদক্ষেপ অভিবাসন-সমস্যার কোনো স্থায়ী সমাধান নয়। অভিবাসন আইনের ভয়ে যারা তাড়িত, মজুরি ও কাজের ক্ষেত্রে যারা বৈধতার কারণে বঞ্চনার শিকার হচ্ছেন, তাদের জন্য এ ঘোষণা সাময়িক সুবিধা দেবে।

উভয় দলের আইনপ্রণেতাদের সমন্বিত অভিবাসন সংস্কার আইন প্রস্তাব গ্রহণের জন্য আহ্বান জানিয়ে ওবামা জানান, ‘যে দিনটিতে আমি সমন্বিত অভিবাসন আইনে স্বাক্ষর করব, সেদিন থেকে এই নির্বাহী পদক্ষেপ অকার্যকর হবে।’

অভিবাসন আইন নিয়ে কর্মরত যুক্তরাষ্ট্র সুপ্রিম কোর্টের অ্যাটর্নি মঈন চৌধুরী সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ওবামার ঘোষণায় সুবিধাগ্রহণকারী বাংলাদেশির সংখ্যা ১০ হাজারের বেশি হবে না। অবৈধ অভিবাসনে আছেন—এমন উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বাংলাদেশি এই আদেশের কোনো সুবিধা পাবেন না।

টেক্সাসপ্রবাসী সিলেটের সাইফুল হক জানান, ১৮ বছর ধরে তিনি যুক্তরাষ্ট্রে আছেন। বৈধ কাগজপত্র না থাকায় এত দিন সঠিক মজুরির কাজ করতে পারেননি। ওবামার ঘোষণায় আপাতত বৈধভাবে ন্যায্য মজুরির কাজ পাবেন বলে তিনি খুশি।

কংগ্রেসকে পাশ কাটিয়ে ওবামার এ ঘোষণায় যুক্তরাষ্ট্রে মিশ্র প্রতিক্রিয়া শুরু হয়েছে। অভিবাসী গোষ্ঠীগুলো ওবামার পদক্ষেপকে ইতিবাচক বলে উল্লেখ করেছে। অপরদিকে রিপাবলিকান ও রক্ষণশীলরা তার এ ঘোষণায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে।

কংগ্রেসের স্পিকার রিপাবলিকান জন বয়েনার এক ভিডিও বার্তায় বলেন, ওবামা এর আগে বলেছিলেন তিনি কোনো রাজা বা সম্রাট নন। কিন্তু কংগ্রেসকে পাশ কাটিয়ে অভিবাসীদের জন্য সুবিধা দিয়ে তিনি রাজা-বাদশাহর মতো আচরণ করলেন।

রিপাবলিকান সিনেটর মিচ ম্যাককনেল বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের জনগণের মনোভাব এড়িয়ে যাওয়ার পরিণামে ওবামাকে একদিন অনুতপ্ত হতে হবে।