শ্রমমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি তোবা শ্রমিকদের

0
55
toba 1
কারখানা খুলে দেওয়া ও বকেয়া বেতন পরিশোধের দাবি নিয়ে শ্রমমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি দিতে গেলে তোবা গ্রুপ শ্রমিক সংগ্রাম কমিটিকে বাধা দেয় পুলিশ। ছবি তুলেছেন খালিদুল কবির নয়ন

কারখানা খুলে দেওয়া ও বকেয়া বেতন ২৫ সেপ্টম্বরের মধ্যে পরিশোধের দাবি নিয়ে শ্রমমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে তোবা গ্রুপ শ্রমিক সংগ্রাম কমিটি। রোববার ১৫ জন শ্রমিক নেতা ও ৫টি কারখানার ৫ জন শ্রমিক এই স্মারকলিপি প্রদান করেন।

এজন্য বেলা ১১টায় তোবা গ্রুপের শ্রমিকরা জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জড়ো হয়। এরপর পৌনে ১২টায় তারা একটি মিছিল নিয়ে সচিবালয়ের দিকে এগুলে নিরাপত্তা কর্মীরা তাদের বাধা দেয়। বাধা পেয়ে আহ্বায়ক মোশরেফা মিশুর নেতৃত্বে একটি টিম সচিবালয়ে প্রবেশ করে।

এর আগে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে দেওয়া বক্তব্যে মিশু বলেন, তোবার শ্রমিকরা না খেয়ে রয়েছেন। বাড়িওয়ালা ও দোকানিরা তাদের শুধু শাষিয়ে যাচ্ছেন। এদিকে মালিক দেলোয়ার হোসেন ৫টি কারখানা বন্ধ করে দিয়ে ১৬০০ শ্রমিকের রুটি রুজির বিষয়টিকে হুমকির মধ্যে ফেলে দিয়েছেন।

তিনি বলেন, কারখানা বন্ধের এমন সিদ্ধান্তকে সরকার অবৈধ বলেছেন। সে ক্ষেত্রে আইন অনুযায়ী ৫টি কারখানা চালু রয়েছে। বেআইনীভাবে তোবা গ্রুপ কর্তৃপক্ষ কারখানার প্রবেশাধিকার হরণ করছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

মন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, গত ঈদে শ্রমিকরা না খেয়ে থেকেছেন। কোরবানিতেও যেন শ্রমিকরা না পাওনাদি থেকে বঞ্চিত না হয়। তারা যেন বেতন-বোনাস নিয়ে আনন্দের সঙ্গে ঈদ পালন করতে পারে।

উল্লেখ, তিন মাসের বকেয়া বেতন-ভাতার দাবিতে রোজার ঈদের আগের দিন থেকে অনশন চালিয়ে আসা তোবা গ্রুপ সংগ্রাম কমিটির সদস্যদের গত ৭ অগাস্ট কারখানা থেকে পিটিয়ে বের করে দেয় পুলিশ। এরই মধ্যে বিজিএমইএর মধ্যস্থতায় শ্রমিকদের বকেয়া বেতন পরিশোধের ব্যবস্থা হয়।

শ্রমিকদের আন্দোলনের মধ্যেই বেতন দেয়ার অঙ্গীকার করে হাইকোর্ট থেকে জামিন পান দেলোয়ার, যিনি তাজরীনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় করা মামলায় কারাগারে ছিলেন।

শ্রমিক আন্দোলনকে কারণ হিসাবে দেখিয়ে দেলোয়ার গত ১৮ অগাস্ট তোবা গ্রুপের পাঁচ কারখানা অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেয়।

বন্ধ কারখানাগুলো হলো- তোবা টেক্সটাইল, তায়েব ডিজাইন, মিতা ডিজাইন, বুকশান গার্মেন্টস ও তোবা ফ্যাশনস।

শ্রম আইন, ২০০৬-এর ১৩ (১) ধারা অনুযায়ী কারখানা বন্ধের এই ঘোষণা ১১ জুন থেকে কার্যকর হবে।