ট্রিপল ‘এ’র হাতে ৩ আইপিও

0
109
দুই কোম্পানির লোগো
দুই কোম্পানির লোগো
দুই কোম্পানির লোগো

এএএ ফিন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের হাত ধরে পুঁজিবাজারে আসার আপেক্ষায় আছে বিমা, পেপার অ্যান্ড প্রিন্টিং ও খাদ্য খাতের ৩টি কোম্পানি। প্রাথমিক গণ প্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে বাজারে শেয়ার ছেড়ে মূলধন সংগ্রহে আগ্রহী এরা। কোম্পানি ৩টি হচ্ছে- এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্স, বসুন্ধরা পেপার ও আফতাব হ্যাচারি। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছেকোম্পানি ৩টির মধ্যে এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্সের প্রাথমিক তদন্ত শেষ। এখন কমিশন বৈঠকে ওঠার অপেক্ষায়। বাকী দুটি কোম্পানির মূলধন বৃদ্ধির কাজ চলছে।

জানা গেছেএক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্সের বাজার থেকে প্রায় ৪৩ কোটি ৪৬ লাখ টাকা সংগ্রহ করতে চায়। তবে সব কিছুই নির্ভর করবে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) অনুমোদনের উপর।

জানা গেছেএক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্সের লিমিটেড ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সঙ্গে ১০ টাকা প্রিমিয়ামসহ ২০ টাকা দরে শেয়ার বিক্রির জন্য আবেদন করেছে বিএসইসির কাছে। বিএসইসির অনুমোদন পেলে এ কোম্পানিটি বাজার থেকে টাকা তুলার কাজ শুরু করবে।

কোম্পানিটির ২০১২ সালে শেয়ার প্রতি আয় ছিল ২ টাকা ৯৫ পয়সা ও ২০১৩ সালে তা হয়েছে ২ টাকা ৬২ পয়সা। একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য বা এনএভি ছিল ১৬ টাকা ৬১ পয়সা ও ১৬ টাকা ৪৭ পয়সা।

জানা গেছে, কোম্পোনিটি শেয়ারহোল্ডাদেরকে ২০১১ সালে ২০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছিল। ২০১২ সালে এর পরিমাণ ছিল ২৪ শতাংশ। এর মধ্য ১২ শতাংশ নগদ ও ১২ শতাংশ বোনাস। ২০১৩ সালে দিয়েছে ২০ শতাংশ। এর পুরোটাই নগদ।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে এএএ ফিন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ওবায়েদুর রহমান অর্থসূচককে বলেন, আমরা  বর্তমানে ৩টি কোম্পানি আইপিওর মাধ্যমে বাজারে আনার জন্য কাজ করছি। এদের মধ্যে এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্সের কাজ শেষ পর্যায়ে। এখন শুধু কমিশনের অনুমোদন পেলে কোম্পানিটি বাজার থেকে মূলধন সংগ্রহ করতে পারবে। বাকী দুটি কোম্পানি বাজারে আনার প্রক্রিয়া চলছে।

জিইউ/এসএ/