চবি শিক্ষক বাসে বোমা হামলায় আটক ২৫

0
83
CU teacher
শিক্ষক বাসে বোমা হামলায় আহতদের একজন। ফাইল ছবি

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শিক্ষক বাসে বোমা হামলার ধটনায় হাটহাজারী থানায় মামলা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। গতকাল বুধবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন দপ্তরের উপ-পরিচালক রবিউল আলম বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

CU teacher
বুধবার হাটহাজারীর ছড়ারকুল এলাকায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক বাসে বোমা হামলায় আহতদের একজন।

বৃহস্পতিবার সকালে হাটহাজারী থানার এএসআই মাসুকুর রহমান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের করা মামলায় অজ্ঞাত পরিচয়ে ১৫-২০ জনকে আসামি করা হয়েছে। শিক্ষক বাসে বোমা হামলার ঘটনায় এখন পর্যন্ত মোট ২৫ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের দুটি হল খুলে দেওয়ার দাবিতে ছাত্র ধর্মঘটের মধ্যে গতকাল বুধবার সকালে হাটহাজারী সড়কের ছড়ারকুল এলাকায় শিক্ষক বাসে বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। এতে গাড়িচালক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকসহ ১৪ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে ৯ জনকে তাৎক্ষণিকভাবে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। বোমা হামলার পরই ঘটনাস্থল থেকে ৫জনকে আটক করে পুলিশ।

হাটহাজারী সার্কেলের এএসপি আ.ফ.ম নিজামউদ্দিন বলেন, ঘটনাস্থল থেকে আটক ৫ জনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ। তাদের মধ্যে ২ জন হামলায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে।

পুলিশ জানায়, বুধবার বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত ক্যাম্পাসে কয়েকটি কটেজে অভিযান চালিয়ে বোমা হামলায় জড়িত থাকার সন্দেহে অপর ২০ শিবিরকর্মীকে আটক করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে হাতবোমা, রামদা, কিরিচসহ ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

বোমা হামলার পর ঘটনাস্থলে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের প্রভাষক এইচ.এম. কামরুল হাসান বলেন, সাধারণ শিক্ষর্থীদের নামে ছাত্রশিবির বিশ্ববিদ্যালয়ে ধর্মঘট ডেকেছে। তারাই বাসে বোমা হামলা চালিয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ আগস্ট ক্যাম্পাসে ইসলামী ছাত্রশিবির ও ছাত্রলীগকর্মীদের মধ্যে গোলাগুলির পর ‘সোহরাওয়ার্দী’ হলে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় বেশ কিছু পেট্রোল বোমা ও পাথর উদ্ধার করা হয়। পরদিন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিবিরকর্মীদের নিয়ন্ত্রণে থাকা এ হলটি বন্ধ করে দেয়।

এছাড়া গত ১২ জানুয়ারি শিবির-ছাত্রলীগের সংঘর্ষে দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ঘটনায় সিলগালা করে দেয়া হয় শাহ আমানত হল। এ হলটিও শিবির কর্মীদের নিয়ন্ত্রণে ছিল।

হল ২টি খুলে দেওয়ার দাবিতে হলের আবাসিক শিক্ষার্থীদের নামে শিবিরকর্মীরা বিভিন্ন গণম্যাধ্যমে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে ৩১ আগস্ট থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র ধর্মঘটের ডাক দেয়।

এই ধর্মঘটের প্রথম দিন চৌধুরীহাট স্টেশনে শাটল ট্রেনে হাতবোমা ছুড়ে ধর্মঘটকারীরা। পরদিন একই এলাকায় শিক্ষকবাস ভাংচুর করা হয়। গত ৪ সেপ্টেম্বর নগরীর পাহাড়তলী ইস্পাহানি রেল ক্রসিং এলাকাতেও একটি বাস ভাংচুর করে তারা।

এমই/