চিরনিদ্রায় ফিরোজা বেগম

0
61
feroza begum
feroza begum
সর্বস্তরের মানুষ শহীদ মিনারে ফিরোজা বেগমের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। ছবি-খালেদুল কবির নয়ন

চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন বরেণ্য নজরুল সংগীত শিল্পী ফিরোজা বেগম।

আজ বুধবার বাদ আসর রাজধানীর গুলশানের আজাদ মসজিদে জানাজার পর তাকে বনানী কবস্থানে সমাহিত করা হয়।

গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টায় অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিলো ৮৪ বছর।

বুধবার সকাল আটটায় হাসপাতালের হিমঘর থেকে ফিরোজা বেগমের মরদেহ ইন্দিরা রোডের বাসভবনে নেওয়া হয়। সেখানে গণমাধ্যমের অসংখ্য কর্মীসহ মরহুমার ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা ভিড় করেন। সেখান থেকে মরদেহ নেওয়া হয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে।

সেখানে শ্রদ্ধা জানান শিল্পীর প্রয়াণে শোকাহত অসংখ্য মানুষ। বিকেল ৪টার দিকে সেখানে এক মিনিট নীরবতা পালনের মাধ্যমে শেষ হয় শ্রদ্ধা নিবেদন পর্ব।

এরপর প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাকে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হয়।

প্রসঙ্গত, প্রসঙ্গত, ১৯৩০ সালের ২৮ জুলাই ফরিদপুরের গোপালগঞ্জ মহকুমার (বর্তমান জেলা) রাতইল ঘোনাপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন ফিরোজা বেগম। ১৯৪২ সালে ১২ বছর বয়সে বিখ্যাত গ্রামোফোন কোম্পানি থেকে ইসলামী গান নিয়ে তাঁর প্রথম রেকর্ড বের হয়।

নজরুলের গান নিয়ে প্রকাশিত তাঁর প্রথম রেকর্ড বের হয় ১৯৪৯ সালে। এরপর নজরুলের একের পর গান গেয়ে উপমহাদেশের অন্যতম সেরা নজরুল সংগীত শিল্পী হিসেবে স্বীকৃতি অর্জন করেছিলেন তিনি। স্বাধীনতা পদক ও একুশে পদকসহ দেশে-বিদেশে একাধিক সম্মানে ভূষিত হয়েছেন তিনি।

১৯৫৫ সালে খ্যাতনামা সুরকার কমল দাশগুপ্তের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। বিখ্যাত ব্যান্ড শিল্পী হামীন ও শাফীন আহমেদসহ তার তিন সন্তান রয়েছে।

মঙ্গলবার ফিরোজা বেগমের মৃত্যুর খবর চাউর পর সাংস্কৃতিক অঙ্গলে শোকে ছায়া নেমে এসেছে। রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এ ছাড়া শোক প্রকাশ করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এবং বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও ফিরোজা বেগমের মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।