২০১৪’র ক্রিসমাসে মুক্তি পাচ্ছে হৃতিকের ‘শুদ্ধি’

shuddhi14.jpg1২০১৩ কে তাদের ফিল্ম ইতিহাসের সবচেয়ে সফল বছর হিসেবে আখ্যা দিয়েছে বলিউড। শুরু থেকেই বক্স অফিস কাঁপানো ছবির আগমন ঘটে এবার, যার রেশ ছিল বছর শেষ পর্যন্ত। বাণিজ্যিকভাবে সফলতার পাশাপাশি এ বছর শত কোটির ক্লাবে প্রবেশ করা সিনেমাগুলো সমালোচক প্রশংসাও কুড়িয়েছে। কিন্তু বছরতো শেষে হতে চলেছে। তাই দর্শকদের দৃষ্টি এবার নতুন বছরে মুক্তি পাবে এমন ছবির দিকে।

সম্প্রতি বলিউডি পরিচালক করন জোহর প্রযোজিত ছবি ‘শুদ্ধি’  মুক্তির তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। তিনি জানান, নতুন বছরের ২৫  ডিসেম্বর ছবিটি মুক্তি পাবে।ভারতের বিনোদন সাইট দি মিড ওয়ের এক সুত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সুত্রটি জানায়, ‘শুদ্ধি’তে হৃতিকের বিপরীতে কে থাকবেন তাই নিয়ে চলেছে এতদিন ধরে বহু জল্পনা। অবশেষে করিনার নাম আনুষ্ঠানিক ভাবে ঘোষনা করেন করন।

তিনি জানান, এক যুগ আগে ‘কভি খুশি কভি গাম’ (২০০১) ছবিতে অভিনয় করেছিলেন হৃতিক রোশন ও কারিনা কাপুর খান। দীর্ঘ বিরতির পর করণ তাঁর ‘শুদ্ধি’ ছবির মাধ্যমে আবার এ জুটিকে দর্শকের সামনে হাজির করতে যাচ্ছেন। ‘শুদ্ধি’ ছবিতে হৃতিক-কারিনার অন্তর্ভুক্তি নিশ্চিত করেছেন বলিউডের অন্যতম প্রভাবশালী এ নির্মাতা। সর্বশেষ ২০০৩ সালে সুরজ বারজাতিয়া পরিচালিত ‘ম্যায় প্রেম কি দিওয়ানি হু’ ছবিতে জুটি বেঁধেছিলেন হৃতিক-কারিনা।

শুদ্ধি’ ছবিতে হূতিক-কারিনার অন্তর্ভুক্তি প্রসঙ্গে করণ জানান, ‘১২ বছর পর আমার ছবিতে হৃতিক-কারিনা জুটির প্রত্যাবর্তনে আমি নিজেও অনেক উচ্ছ্বসিত। ”শুদ্ধি”র পরিচালক করণ মালহোত্রা এই জুটি নিয়ে ছবি তৈরির আগ্রহ প্রকাশ করলে আমি হৃতিক-কারিনার সঙ্গে কথা বলি। তাঁরা দুজনই এই ছবিতে জুটি বেঁধে অভিনয়ের প্রস্তাবে সানন্দে রাজি হয়ে যান। পুনর্জন্মের বিষয়বস্তু নিয়ে মিষ্টি প্রেমের ছবিটির চিত্রনাট্য আমার কাছে নাটকীয় ও চমত্কার লেগেছে।’

করণ আরও বলেন, ‘ছবিটির গল্পের প্রয়োজনে প্রেমের গভীরতা ফুটিয়ে তোলাটা খুব জরুরি। আমার ধারণা, হৃতিক-কারিনা তা খুব ভালোই পারবেন। কারিনা সুন্দরী, প্রতিভাবান ও অসাধারণ একজন অভিনেত্রী। হৃতিক সম্পর্কে কী আর বলব! সবাইকে ঘায়েল করার জন্য তাঁর অদ্ভুত মায়াবী দুটি চোখই যথেষ্ট।’

তবে এটুকু বলব, “শুদ্ধি” ছবিতে হৃতিক-কারিনাকে যে ধরনের চরিত্রে দেখা যাবে, আগে কখনোই তাঁরা এমন চরিত্রে অভিনয় করেননি। আমি জানি, এটা গতানুগতিক ও বহুল ব্যবহৃত একটি বক্তব্য। তার পরও জোর দিয়েই আমি এটা বলছি।’

প্রসঙ্গত, ‘ম্যায় প্রেম কি দিওয়ানি হু’ ছবিতে ছবিতে অভিনয়ের পর বিবাহিত হৃতিকের সঙ্গে কারিনার প্রেমের জোর গুজব ছড়িয়ে পড়ে। এ কারণে পরবর্তী সময়ে তাঁদের এক ছবিতে অভিনয়ের জন্য রাজি করাতে পারেননি কোনো নির্মাতা। অবশেষে সেই অসম্ভবকে সম্ভব করে দেখালেন করণ জোহর।

এস আর/