৪১ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ অবস্থানে নিক্কেই সূচক

tokyo stock exএশিয়ার সেরা বাজার হিসেবে ২০১৩ সালের লেনদেন শেষ করতে যাচ্ছে টোকিও স্টক এক্সচেঞ্জ। বছরজুড়ে এশিয়ার অন্য বাজারগুলো যেখানে স্থিতিবস্থায় কিংবা ক্ষতির মুখোমুখি সেখানে জাপানের পুঁজি বাজারে সূচক ৫৬ শতাংশ বেড়েছে। সোমবারে টোকিও স্টক এক্সচেঞ্জের নিক্কেই-২২৫ সূচকের দশমিক ৩ শতাংশ উন্নয়ন ঘটেছে এবং ২০১৩ সালে মোট ৫৬ শতাংশ। জাপানের পুঁজিবাজারে সূচকের এই উন্নয়ন ১৯৭২ সালের পর সর্বোচ্চ।খবর ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের।

ডলারের বিপরীতে ইয়েনের দরপতনের কারণে নিক্কেই-২২৫ সূচকের এই উন্নয়ন ঘটেছে বলে মনে করছেন পুঁজিবাজার বিশ্লেষকরা। গতকাল নিউইয়র্কে প্রতি মার্কিন ডলার ১০৫ দশমিক ৪১ ইয়েনের বদলে হাতবদল হয়েছিল। সোমবারে এই মূল্য ছিল ১০৫ দশমিক ২৬ ইয়েন।

ইয়েনের মূল্যহ্রাস জাপানের বর্তমান প্রধানমন্ত্রি শিনজো অ্যাবের অর্থনীতি পুনরুদ্ধার নীতির মধ্য অন্যতম।

ওই দিন এশিয়ার অন্যান্য বাজারগুলোতে চাঙাভাব পরিলক্ষিত হয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার এস অ্যান্ড পিএএসএক্স সূচকের দশমিক ৫ শতাংশ এবং দক্ষিন কোরিয়ার কোসপি  সুচকের দশমিক ১ শতাংশ উন্নয়ন ঘটেছে। বছরজুড়ে চিনের পুঁজিবাজারে মন্দাভাব বিরাজ করলেও সোমবারে সাংহাই কমপোজিট সূচকের দশমিক ১ শতাংশ এবং হংকং এর হ্যাংস্যাং সূচকের দশমিক ২ শতাংশ উন্নয়ন ঘটেছে।

২০১৩ সালে চিনের সাংহাই কমপোজিট সূচকের ৭ দশমিক ৩ শতাংশ অবনমন ঘটেছে। যা এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে খারাপ।

আজ এশিয়ার পুঁজিবাজারগুলোর বছরের শেষ পূর্ণ কর্ম দিবস।