শনিবার, অক্টোবর ৩১, ২০২০
Home পণ্যবাজার দুষ্টু রাজনীতির প্রভাব কাঁচাবাজারেও

দুষ্টু রাজনীতির প্রভাব কাঁচাবাজারেও

দুষ্টু রাজনীতির প্রভাব কাঁচাবাজারেও

ক্রেতাশুন্য কাঁচাবাজারবিরোধী দলের “মার্চ ফর ডেমোক্রেসি” সমাবেশের ওপর সরকারের নিষেধাজ্ঞা থাকায় রাজধানী জুড়ে আতঙ্কে নগরবাসী। আর এ কারণেই রাজধানীর বাজারগুলো ক্রেতাশূন্য হয়ে পড়েছে।

গতকাল থেকে পুলিশ দোকান চালাতে নিষেধ করেছে। রোববার সকালে দোকান খোলার পর পুলিশ লাঠি চার্জ করে দোকান বন্ধ করে দেয়।

রাজধানীর এজিবি কলোনী, শান্তিনগর, ফকিরাপুল বাজার ঘুরে দেখার সময় ব্যবসায়ীদের সাথে আলাপকালে ব্যবসায়ীরা এ কথা জানান।

বাজারের এ অবস্থায় যারা দোকান খুলছেন তারা আবার সবজি বিক্রি করছে গতকালের চেয়ে ১০ থেকে ২০ টাকা বেশি মুল্যে।

সবজি ব্যবসায়ী মো. আবদুল বারেক অর্থসূচককে জানান, গতকাল থেকে পুলিশ দোকান বন্ধ করে রাখতে বলেছে। বন্ধ না করলে পরবর্তী যেকোনো ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে।

তিনি বলেন, সকালে এসে পুলিশ লাঠি চার্জের মাধ্যমে দোকান বন্ধ করে দেয়। পুলিশ যাওয়ার পর দোকান খুলি।

তিনি বলেন, দোকান না খুললে খাব কী। আবার যদি দোকান না খুলি তাহলে দোকানের সব সবজি পচে নষ্ট হয়ে যাবে। আমার এ ক্ষতি কে পুশিয়ে দেবে।

আরেক ব্যবসায়ী মো. মহিউদ্দিন অর্থসূচককে বলেন, আজ বিএনপির  সমাবেশে সরকারি নিষেধাজ্ঞা থাকায় কি হয় না হয় এই ভয়ে কেউ বের হচ্ছে না। তাই বেচা বিক্রি নাই।

পুলিশ জানিয়েছে  দোকানদারদের নিরাপত্তার কথা ভেবে দোকান বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। এর আগে মতিঝিলে গাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছিল।

আজকের বাজার চিত্রঃ

কাঁচাবাজারঃ

কাঁচাবাজারে আজ দেখা গেছে, প্রতিকেজি শসা ৪০ টাকা, কাঁচা মরিচ ৫০ থেকে ৬০ টাকা, লম্বা বেগুন ৩০ টাকা, গোল বেগুন ৩০ টাকা, তাল বেগুন ৫০ টাকা, লাল শিম ২৫ টাকা, সবুজ শিম ২৫ টাকা, বিচি ওয়ালা শিম ৩০ টাকা, ঝিঙ্গা ৮০ টাকা, মুলা ২০ টাকা,চিচিঙ্গা ৮০ টাকা, আলু ২০ টাকা, নতুন আলু ২৫ টাকা, গাজর ৩০ টাকা, করলা ৫০ টাকা, ঢেঁড়স ৫০ টাকা, পটল ৬০ টাকা, পেঁপে ১৫ থেকে ২০ টাকা, কচুর লতি ৪০ থেকে ৫০ টাকা, কচুর মুখি ৫০ টাকা,বরবটি ৮০ থেকে ৯০ টাকা,টমেটো ৫০ টাকা,কাঁচা টমেটো ৩০ টাকা,শালগম ২৫ টাকা, ক্যাপসিক্যাম ৩০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এ ছাড়া প্রতিপিস ফুলকপি ২৫ থেকে ৩০ টাকা, ব্রকলি (সবুজ ফুলকপি) ৪০ থেকে ৫০ টাকা বাঁধাকপি ২৫ টাকা, মিষ্টিকুমড়া ৮০ থেকে ১২০ টাকা ও লাউ ৬০ টাকা, জালি কুমড়া ৪০ থেকে ৫০ টাকা পিস হিসেবে বিক্রি হচ্ছে এবং প্রতিহালি কাঁচকলা ২৫ টাকা ও লেবু ১৫ থেকে টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এ ছাড়া বাজারে লালশাক, লাউ শাক, পালং শাক,মুলা শাক, কুমড়া শাক, ডাটা শাকসহ নানা ধরনের শাকের আটি ১০ থেকে ৩৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এবং লেটুস পাতা প্রতিপিস ২০ টাকা, পুদিনা পাতা ১০০ গ্রাম ২৫ টাকা, ধনেপাতা প্রতি ১০০ গ্রাম ১০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

মুদি

মুদি দোকান ঘুরে দেখা গেছে,প্রতিকেজি নতুন পেঁয়াজ ৫০ থেকে ৬০ টাকা,ভারতীয় পেঁয়াজ ৪০ থেকে ৫০ টাকা, চায়না বড় রসুন ৮৫ টাকা, দেশি রসুন ৯০ টাকা,একদানা রসুন ১২০ টাকা,চায়না আদা ১৮০ টাকা,ইন্দোনেশিয়ান আদা ১৪০ টাকা, শুকনা মরিচ ১৮০ টাকা, হলুদ ১২০ টাকা, হলুদের গুঁড়া ১৮০ টাকা, মরিচের গুঁড়া ২২০ টাকা, ধনিয়া ৮৫ টাকা, আটা (প্যাকেট) ৩৮ টাকা, ময়দা (প্যাকেট) ৪৮ টাকা, দারুচিনি ৩০০ টাকা, এলাচি ১ হাজার ২০০ থেকে ১ হাজার ৭০০ টাকা, জিরা ৩৫০ টাকা থেকে ৪৫০ টাকা, বেশন ৯০ টাকা, দেশি মশুর ডাল ১২৫ টাকা, ভারতীয় মশুর ডাল ৮০ টাকা, খেসারি ডাল ৪৫ টাকা, মুগ ডাল ১২০ টাকা, ছোলা ৬০ টাকা, অ্যাংকর ডাল ৪২ টাকা, মাসকলাই ১২০ টাকা, বুট ৫০ টাকা, খোলা চিনি ৪৫ টাকা, প্যাকেট চিনি ৫০ টাকা ও প্রতি লিটার সয়াবিন খোলা ১১৫ টাকা ও বোতলজাত সয়াবিন ১২৫ টাকা হিসেবে বিক্রি হচ্ছে।

চাল

আজ চালের বাজারে প্রতিকেজি নাজিরশাইল ৫৮ থেকে ৬০ টাকা, মিনিকেট ৪৮ থেকে ৫০ টাকা, লতা আটাশ ৩৮ থেকে ৪০ টাকা, মোটা চাল ৪২ টাকায়, জিরা নাজির ৫৫ টাকা, আটাশ ৪২ টাকা, পাইজাম ৪০ টাকা, চিনি গুড়া ১১০ টাকা, পারিজা ৩৮ টাকা, বিআর-২৮  ৪৩ টাকা, বিআর-২৯ ৪৩ টাকা, হাসকি ৪২ টাকা, স্বর্ণা ৩৬ টাকা থেকে ৩৮ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

ডিম

আজকে বাজারে প্রতি হালি লেয়ার মুরগির লাল ও সাদা ডিম ২৮ টাকা, হাঁসের ডিম ৪০ টাকা, পাকিস্তানি মুরগির ডিম ৪০ টাকা, দেশি মুরগির ডিম ৪০ টাকা দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে।

মাছঃ

মাছের বাজারে আজ ৮০০ থেকে ৯০০ গ্রাম ওজনের বেশি প্রতিহালি ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার ৬০০ টাকা। এক কেজি ওজনের বেশি ইলিশের পিস ৬০০ টাকা ও প্রতিকেজি জাটকা ৩২০ টাকা, চন্দনা ইলিশ ১৫০ টাকা, কাতল মাছ ২২০ টাকা, রুই মাছ ১৮০ টাকা, তেলাপিয়া ১২০ টাক, চায়না পুটি ১৪০ টাকা, পাঙ্গাস ১২০ টাকা, চিংড়ি (বড়) ১ হাজার ২০০ টাকা, চাষের কৈ ২৫০ টাকা, দেশি কৈ ৫০০ টাকা, টাকি ১৪০ টাকা, সিলভার কার্প ১১০ টাকা, শোল মাছ ৫৫০, মলাঢেলা ২০০ টাকা, বাইলা মাছ ৬৫০ টাকা, কাচকি মাছ ২৫০ টাকা, সুরমা মাছ ১৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

শুটকি মাছঃ

শুটকি মাছ প্রতি ১০০ গ্রাম চিংড়ি শুটকি মানভেদে ৩০ টাকা থেকে ৭০ টাকা, টাকি ৬০ টাকা, কাসকি ৬০ টাকা, লইট্যা শুটকি ৪০ থেকে ৫০ টাকা, বাইম মাছের শুটকি ৮০ টাকা, চাপিলা শুটকি ৬০ টাকা, পুঁটি মাছের শুটকি ৬০ টাকা, নলা মাছের শুটকি ৬০ টাকা, চান্দা মাছের শুটকি ৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া প্রতি কেজি ইলিশ মাছের শুটকি ৭০০ টাকা ও কাইলা শুটকি ৬০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

মাংসঃ

মাংসের বাজারে গরুর মাংস ২৮০ টাকা ও খাসি ৪৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এক কেজি ওজনের প্রতিটি দেশি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২৮০ থেকে ৩৫০ টাকা,ব্রয়লার মুরগি ১৩০ টাকা, লেয়ার মুরগি ১৪৫ টাকা, হাঁস ৩০০ টাকা, ভেড়া ও ছাগীর মাংস ৪৫০ টাকা এবং কবুতরের বাচ্চা ২৫০ টাকা জোড়া হিসেবে বিক্রি হচ্ছে।

ফলঃ

আজ ফলের বাজারে আপেল ১৫০ থেকে ১৮০ টাকা, মালটা ১৫০ টাকা, আঙুর ৪৫০ টাকাও প্রতি ডজন কমলা ২০০ থেকে ২২০ টাকা, বেদানা ২৫০ টাকা, পেয়ারা ১৫০ টাকা, আমড়া ১২০ টাকা, আমলকি ১৫০ টাকা, ছবেদা ৮০ টাকা ও জলপাই ৪০ টাকা, কুল বড়ুই ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে

এ ছাড়া প্রতিহালি সাগর কলা ২৫ টাকা, নেপালি কলা ১৫ টাকা, শবরী কলা ২৫ টাকা, চাপা কলা ১৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

প্রতিপিস জাম্বুরা ৮০ টাকা থেকে ১২০ টাকা, বেল ৮০ থেকে ১৫০ টাকা, আনারস প্রতিপিস ৫০ থেকে ৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এসএস/এআর