আওয়ামী ব্যবসায়ীদের জন্য শত কোটি টাকার উপহার
বুধবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » রাজনীতি

আওয়ামী ব্যবসায়ীদের জন্য শত কোটি টাকার উপহার

Gowher_Ruhul_Abulদলীয় নীতিনির্ধারক ও সমর্থক ব্যবসায়ীদের জন্য নানা উপহারের ব্যবস্থা করেছে সরকার। টেলিকম খাতের ব্যবসায়ীদের জন্য লাইসেন্স ফি কমিয়ে দেওয়া হয়েছে শত কোটি টাকার সুবিধা। আন্তর্জাতিক গেটওয়ে (আইজিডব্লিউ) ও ইন্টারকানেকশন এক্সচেঞ্জের (আইসিএক্স)লাইসেন্স ফি কমিয়ে অর্ধেক করা হয়েছে। এ ফি পুনঃরায় পরিবর্তন করা না হলে আগামি সাত বছরে ন্যূনতম এক হাজার কোটি টাকা হারাবে সরকার। ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

গত সপ্তাহে ডাকা ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় টেলিকম ফি কমানোর প্রস্তাবে সায় দিয়েছে। এর ফলে এখন থেকে আইজিডব্লিউ কোম্পানিগুলোকে প্রতি বছর সাড়ে সাত কোটি টাকার বদলে পৌনে তিন কোটি টাকা লাইসেন্স ফি দিতে হবে। অন্যদিকে আইসিএক্স কোম্পানিগুলোকে তিন কোটি টাকার জায়গায় দিতে হবে দেড় কোটি টাকা। বতমানে দেশে ২৬ টি আইজিডব্লিউ ও ২০ আইসিএক্স রয়েছে। এ হিসেবে এদের মালিকদেরকে সম্মিলিতভাবে প্রায় দেড়শ কোটি টাকার বিশেষ সুবিধা দেওয়া হয়েছে। ফলে প্রতি বছর সরকার হারাবে সমপরিমাণ অথ।

এমনিতেই কয়েকটি আইজিডব্লিউ কোম্পানির কাছে রাজস্ব ভাগাভাগির পাঁচ শতাধিক কোটি বকেয়া রয়েছে সরকারের। এসব কোম্পানি বিদেশ থেকে ফোন কল দেশে নিয়ে আসার বিনিময়ে অর্ পেলেও তা থেকে সরকারের প্রাপ্য পরিশোধ করেনি। টেলিকম খাতের রেগুলেটর বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশন (বিটিআরসি) কয়েক দফা নোটিস দিয়েই দায়িত্ব শেষ করেছে। বকেয়া রাজস্ব পরিশোধ না করার কারণে চারটি আইজিডব্লিউর লাইসেন্স বাতিল করা হলেও তা আদায়ে কোনো আইনী ব্যবস্থা নেয়নি তারা। এর মধ্যে অসাধু কোম্পানিগুলোর জন্য প্রণোদনার আয়োজন করে বিটিআরসি।

জানা গেছে, বেশ কিছুদিন ধরেই আইজিডব্লিউ ও আইসিএক্স কোম্পানির মালিকরা লাইসেন্স ফি কমানোর চেষ্টা করে যাচ্ছিল। অনেক চেষ্টা তদ্বিরের পর তারা সরকারের উচ্চ মহলকে সম্মত করাতে সক্ষম হয়। এর পর মন্ত্রণালয়ের ব্যাবসায়ী-রাজনীতিকদের পাশে দাঁড়ায় বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশন (বিটিআরসি। সংস্থাটি লাইসেন্স ফি কমানোর একটি প্রস্তাব পাঠায় মন্ত্রণালয়ে। গত সপ্তাহে কথিত নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের আগে মন্ত্রণালয় প্রস্তাবটি অনুমোদন করে।

জানা গেছে, সরকারের সাবেক মন্ত্রী-উপদেষ্টাদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের পরিবারের সদস্যরা  টেলিকম খাতের ব্যবসায় যুক্ত। এদের মধ্যে সাবেক যোগাযোগ মন্ত্রী আবুল হোসেনের মেয়ে, স্বাস্থ্য মন্ত্রী আফম রুহুল হকের ছেলে, পররাষ্ট্র উপদেষ্টা গওহর রিজভীর ভাই, স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানকের মেয়ে, প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী মাহবুবুল আলম হানিফ ও নায়ানগঞ্জের আলোচিত সাবেক সংসদ সদস্য শামিম ওসমান আইজিডব্লিউর সঙ্গে যুক্ত। নামে-বেনামে বিভিন্ন আইজিডব্লিউ কোম্পানিতে তাদের শেয়ার রয়েছে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ