বাধা যেখানে প্রতিরোধও সেখানে: খন্দকার মাহবুব

বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অ্যাড. খন্দকার মাহবুব হোসেন-ফাইল ছবি

mahabubখালেদা জিয়ার ডাকে ২৯ ডিসেম্বর ‘মার্চ ফর ডেমোক্রেসি’ কর্মসূচিতে যেখানে বাধা আসবে সেখানেই প্রতিরোধ করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান ও বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা এডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের হল রুমে অল কমিনিউনিটি ফোরাম আয়োজিত ‘মার্চ ফর ডেমোক্রেসি’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ ঘোষণা দেন।

সরকারকে উদ্দেশ্য করে খন্দকার মাহবুব বলেন, এই কর্মসূচিতে কোন ধরনের বাধা বা ষড়যন্ত্রকে বরদাস্ত করা হবেনা। গনতন্ত্রের জন্য এই অভিযাত্রায় যেখানে বাধা আসবে জনগণকে নিয়ে সেখানেই প্রতিরোধ করা হবে।

তিনি বলেন, মার্চ ফর ডেমোক্রোসী রক্তপাত-সংঘাত ও নৈরাজ্যের কর্মসূচি না। দেশনেত্রী বেগম জিয়া গণতন্ত্র রক্ষায় শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন। এই কর্মসূচিকে শান্তিপূর্ণভাবে পালন করতে দিন।

খন্দকার মাহবুব বলেন, বিরোধী দলীয় নেত্রীকে মাঝে মাঝে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়। এর মাধ্যমে বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে কলুসিত করেছে সরকার। ২৯ ডিসেম্বর আন্দোলনের মাধ্যমে বাংলাদেশের গণগন্ত্রের কালিমা মুক্ত করা হবে।

নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, দশম জাতীয় সংষদ নির্বাচন হবে না, হতেও দেওয়া হবে। তাই অনতিবিলম্বে  সংসদে বিল এনে সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনী সংশোধন করুন। নতুন সংশোধনী এনে ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন দিন।

নির্বাচন কমিশনারদের প্রসঙ্গে খন্দকার মাহবুব বলেন, এই নির্বাচন কমিশনাররা সরকারের আজ্ঞাবহ ব্যাক্তিতে পরিণত হয়েছে। এই নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) দিয়ে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন আশা করা যায় না। এসময় তিনি বর্তমান নির্বাচন কমিশনারদের বাদ দিয়ে নতুন নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ দেওয়া জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

সংগঠনের উপদেষ্টা ইঞ্জিনিয়ার মো. আশরাফ উদ্দিন বকুলের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায়  অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অ্যাড. আহমেদ আযম খান, বিএনপির সহ-দপ্তর সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব ও বিশিষ্ট আইনজীবী ড. নয়ন বাঙ্গালী প্রমুখ।

এসএস