সাংবাদিকদের সম্পদের হিসাব চাইলেন বনমন্ত্রী

হাছান মাহমুদ

bon-montri-hasan-mahmudযেসব সাংবাদিক ক্ষমতাসীন দলের নেতা ও এমপির সম্পদের হিসাব প্রকাশ করেছে তাদেরও সম্পদের হিসাব প্রকাশ করা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার-সম্পাদক ও বনমন্ত্রী হাসান মাহমুদ। এ সময় তারা কি বৈধ না অবৈধ উপায়ে সম্পদ অর্জন করেছেন সেটাও খতিয়ে দেখা দরকার বলে জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত এক স্মরণ সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় সাংবাদিকদের কঠোর সমালোচনাও করেন তিনি।

২৯ ডিসেম্বর খালেদা জিয়ার মার্চ ফর ডেমোক্রেসির সমালোচনায় তিনি বলেন, খালেদা জিয়া সারাদেশের সন্ত্রাসীদের ঢাকায় এনে নৈরাজ্য সৃষ্টি করতে চায়।

বিএনপিকে রাজনৈতিক কোনো কর্মসূচি করতে দেওয়া হবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিএনপি নৈরাজ্য করবে আর আমরা তা বসে বসে দেখবো এটা হবে না। শান্তিপূর্ণ সমাবেশের ক্ষেত্রে কোনো বাধা নেই। তবে সমাবেশের নামে কোনোভাবেই নৈরাজ্য করতে দেওয়া হবে না।

তিনি বলেন, বিরোধী দলের আন্দোলন দেখলে মনে হয় রাজনীতি জনগণের কল্যাণে নয়, ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য। তারা নির্বাচনের এমন একটি পদ্ধতি চায় যার মাধ্যমে তাদের বিজয় সুনিশ্চিত হবে।

আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বহিরাগতদের উপর নজর রাখার আহ্বান জানিয়ে এ নেতা বলেন, গত দুই-তিন দিনে ঢাকায় অনেক বহিরাগতরা অবস্থান করছে। আপনারা তাদের উপর নজর রাখবেন। বহিরাগত কাউকে দেখা মাত্র পুলিশের হাতে সোপর্দ করবেন।

গতকাল বাংলামটরে গাড়ি পুড়ানোর মামলায় মির্জা ফখরুলের আসামি করার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, এ পর্যন্ত যতটি গাড়িতে আগুন দিয়ে মানুষ মারার ঘটনা ঘটেছে সবকটির হুকুমের আসামি মির্জা ফখরুলসহ বিএনপি নেতারা। এসব নারকীয় হত্যাকান্ডের প্রত্যক্ষ মদদদাতা খালেদা জিয়া। তাকেও আসামি করা উচিত।

সংগঠনের সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক-সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ,জনতা ব্যাংকের পরিচালক বলরাম পোদ্দার,অরুন সরকার রানা প্রমুখ।