পোশাকের সাথে মিলিয়ে গহনা
মঙ্গলবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » ঈদ ফ্যাশান

পোশাকের সাথে মিলিয়ে গহনা

বাঙ্গালি নারীর উৎসবের সাজ মানেই শাড়ি আর গহনা। তাই ঈদকে রাঙাতে শাড়ির সাথে মিল রেখে গহনা কিনছেন অনেকেই। এছাড়া অন্যান্য পোশাকের সাথে মানানসই গহনা কিনতে দেখা গেছে তরুণী এবং বিভিন্ন বয়সের নারীদের। রমজানের শেষ দিকে ভিড় বেড়েছে মার্কেটের গহনার দোকানগুলোতে।

Aurnaments (1)

ঈদের গহনা কিনতে ব্যস্ত নারী।

বাঙালি নারীদের চাহিদা মেটাতে ব্যস্ত সময় পার করছেন জুয়েলারি দোকানিরা। তাদের সংগ্রহে রয়েছে বাহারি সব গহনা; বাঙালি নারীদের ঈদকে রাঙাতে প্রস্তুত দোকানিরাও।

এবার ঈদে উচ্চবিত্ত পরিবারের সদস্যদের কিনতে দেখা গেছে হীরা আর স্বর্ণের গহনা। অনেকেই স্বর্ণের চুরি, হীরার কানের টপস, নাকফুল আর লকেটও কিনছেন। অন্যদিকে মধ্যবিত্ত পরিবারের সদস্যদের কিনতে দেখা গেছে রূপার ওপর সোনার প্রলেপ দেওয়া গহনা। আবার কেউ কেউ কিনছেন ইমিটেশনের গহনা। রাজধানীর চাঁদনীচক, নিউমার্কেট, বসুন্ধরা সিটি, মৌচাক মার্কেট ঘুরে দেখা যায় হীরার চেয়ে সোনার গহনা বেশি বিক্রি হচ্ছে।

ঈদ আয়োজনে গয়নার কালেকশনে রয়েছে ভারতীয় রূপার উপর স্টনের কারুকাজে তৈরি নেকলেসসহ দুল, চুড়ি, ব্রেসলেট, পায়েল ও রিং। এছাড়া রয়েছে আর্টিফেশিয়াল ডায়মন্ড স্টোন এবং অক্সাইডের তৈরি সব গহনা। স্বর্ণের দাম মধ্যবৃত্তের নাগালের বাইরে হওয়ায় গোল্ড প্লেটেড আর ইমিটেশনের গয়নার দোকানে ভিড় রয়েছে।

Aurnaments (2)

স্বর্ণের অলংকারের পাশাপাশি জুয়েলারিগুলোতে রাখা হয়েছে ইমিটেশন ও মাটির অলংকার।

এবারের ঈদের জন্য ঝলমলে সব গহনার কালেকশন রেখেছে সীমান্ত স্কয়ারের ফ্যাশন হাউজ কে.জি.। এখানে রয়েছে ভারতীয় জয়পুরী নেকলেস, এক্সক্লুসিভ ইন্ডিয়ান নেকলেস, হোয়ায়েট স্টোন নেকলেস সেট, অফ হোয়ায়েট পার্ল সেট, মাল্টি কালার স্টোন নেকলেস, মাল্টি কালার ব্রেসলেট।

কে.জি.-এর ম্যানেজার আসলাম খান বলেন, ঈদ উপলক্ষে অর্ডিনারি গহনা থেকে শুরু করে জমকালো সব গয়নার কালেকশন রাখা হয়েছে। মেয়েদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে ঈদের পোশাকের সাথে মিলিয়ে কানের দুল, ব্রেসলেট, ফিঙ্গার রিং ইত্যাদি।

তিনি জানান, কে.জি. শো-রুমে ২-৬ হাজার টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে নেকলেস সেট। কানের দুলের সর্বনিন্ম দাম ১৫০ টাকা, ব্রেসলেট সর্বনিম্ন ৪৫০ টাকা, চুরি সর্বনিম্ন ৬৫০ টাকা, পায়েল সর্বনিম্ন ১৫০ টাকা এবং ফিঙ্গার রিং ১৫০ টাকায় কেনা যাবে। গয়নার কোয়ালিটিভেদে দামের তারতম্য রয়েছে।

ঈদের পোশাক কেনার পর এর সাথে মিল রেখে গহনা কিনতে সীমান্ত স্কয়ায়ে হাজির হয়েছিলেন স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী মৌটুসী। তিনি বলেন, স্বর্ণের গহনা সব সময় ব্যবহার করা যায় না। তাই ঈদের পোশাকের সাথে মানানসই ইমেটেশন আর অক্সাইডের গহনা কিনতে এখানে আসলাম।

Aurnaments (4)

নিউমার্কেটের একটি জুয়েলারিতে স্বর্ণের অলংকারের আয়োজন।

সোনালি রং ছাড়াও হোয়াইট গোল্ডের চাহিদা বাড়ছে। বিভিন্ন রঙের গহনা কেনার পরও হোয়াইট গোল্ডের দুটো চুড়ি কিংবা এক জোড়া কানের দুল কিনছেন অনেকে। হীরা কিংবা মুক্তার সঙ্গে ব্যবহার হচ্ছে হোয়াইট গোল্ড।

স্বর্ণের গহনার সঙ্গে হীরার গহনাও বাঙালি নারীদের মাঝে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এটা অনেকটা অভিজাত্যের প্রতীক। তাই তরুণীদের মাঝে হীরার গহনার চাহিদা বাড়ছে। ছোট ছোট নকশার হীরার গহনাগুলোই ক্রেতাদের পছন্দের তালিকার শীর্ষে রয়েছে। এ ক্ষেত্রে হীরার আংটি, নাকফুল আর কানের দুলের চাহিদাই বেশি। অনেকেই হীরার লকেট ব্যবহার করেন।

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দেশের সবচেয়ে বড় জুয়েলারি হাউস আপন জুয়েলার্স ডায়মন্ডের উপর ক্রেতাদের জন্য দিচ্ছে আকর্ষণীয় ডিসকাউন্ট অফার। এই অফারে আপন জুয়েলার্সের ডায়মন্ডের উপর রয়েছে ৩০শতাংশ ছাড়। এখানে বিভিন্ন রকমের ডায়মন্ড জুয়েলারির মধ্যে নেকলেস সেট, ফিংগার রিং, চুড়ি, ব্যাঙ্গল, লকেট সেট, ইয়ার রিং, নোজ পিন, প্লাটিনাম রিং, লকেট ইত্যাদি কম মূল্যে পাওয়া যাবে। ক্রেতাদের জন্য এই অফার চলবে ঈদ পর্যন্ত।

এছাড়া পছন্দের অর্নামেন্ট কিনতে ভিড় জমেছে অ্যারাবিয়ানস এবং পার্ল হাউজের শো-রুমে। আর দেশীয় ফ্যাশন হাউজ আড়ং, মাদুলি, যাত্রা, রং ইত্যাদি ফ্যাশন হাউজগুলোতে পাওয়া যাচ্ছে দেশীয় উপাদানে তৈরি নানা রকম গহনা।

এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ