বৃহস্পতিবার নামছে সেনাবাহিনী

সেনা টহল

সেনা টহলআগামিকাল বৃহস্পতিবার থেকে সারা দেশে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে দেশের বিভিন্ন জেলায় সেনাবাহিনী পৌঁছাতে শুরু করেছে।

আসন্ন সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নির্বাচন কমিশন থেকে সেনাবাহিনী চাওয়া হয়। নির্বাচনকালীন সময়ে সেনাবাহিনী স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে নিয়োজিত থাকবে। রিটার্নিং অফিসারের পরামর্শ অনুযায়ী বিভিন্ন কাজে সেনা সদস্যরা সহায়তা করবেন।

এছাড়া সেনাবাহিনীর সঙ্গে ম্যাজিস্ট্রেট থাকবেন। নির্বাচনের দিন ভোট কেন্দ্রের অভ্যন্তরে কিংবা ভোটকক্ষে সেনা সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন না। তবে তারা কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবেন না।

কমিশন সুত্রে জানা যায়, প্রত্যেক জেলায় ৮০০ করে সেনা সদস্য মোতায়েন থাকবেন। তাদের দায়িত্বে থাকবে একজন করে লে. কর্নেল পদমর্যাদার কর্মকর্তা। সেনা সদস্যদের ক্যাম্প স্থাপন করা হবে জেলা সদরে।

নির্বাচনের দিন উপজেলাগুলোতে থাকবে দুই থেকে তিন প্লাটুন সেনা। প্রতি প্লাটুনে থাকবে ৩৫ জন সেনা সদস্য। আসন্ন দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ২৬ ডিসেম্বর ৯ জানুয়ারি পর্যন্ত  ১৫ দিন সেনাবাহিনী মাঠে থাকবে।

উল্লেখ্য, গত ২০ ডিসেম্বর আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও রিটার্নিং অফিসারদের সাথে কমিশন বৈঠক করে। বৈঠক শেষে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ বলেন, ২৬ ডিসেম্বর থেকে ৯ জানুয়ারি পর্যন্ত সেনা মোতায়েন করা হবে। সেনাবাহিনীর সঙ্গে ম্যাজিস্ট্রেটও থাকবেন বলেও তিনি বলেছিলেন।

নির্বাচনকে শান্তিপুর্ণ করার জন্য এবং ভোটারদের নিরাপিত্তা নিশ্চিত করার জন্য সারা দেশে প্রায় ৬ লাখ সদস্য থাকবে। এদের মধ্যে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সাড়ে পাঁচ লাখ সদস্য ও সশস্ত্রবাহিনীর ৫০ হাজার সদস্য রয়েছে বলে কমিশন সূত্র থেকে জানা যায়।

 

কবির/