সোনামণিকে সাজাতে ভিড় ফ্যাশন হাউজে
রবিবার, ১৩ জুলাই, ২০২০
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » ফ্যাশন হাউজের খোঁজখবর

সোনামণিকে সাজাতে ভিড় ফ্যাশন হাউজে

eid

ঈদের কেনাকাটায় ব্যস্ত এক শিশু। ছবি- শিউলী রহমান

ঈদ মানেই আনন্দ। আর ছোটদের জন্য এই আনন্দ একটু বেশিই। তাই ঈদে  পরিবারের বড়দের পোশাক কেনা হোক বা না হোক, ছোটদের পোশাক কেনা চাই-ই চাই। তাই খুলনার অনেকেই ছোট্ট সোনামণির জন্য কিনে ফেলেছেন ঈদের পোশাক। আর পছন্দ না হওয়ায় অনেকে ঘুরছেন দোকানে দোকানে।

খুলনার বিভিন্ন বাজারে শিশুদের নানা রকমের পোশাক পাওয়া গেলেও বেশি পাওয়া যাচ্ছে বড় বড় ফ্যাশন হাউজে। এ কারণে সেসব স্থানে ভিড়ও বেশি।

মঙ্গলবার নগরীর খুলনা শপিং কমপ্লেক্স, আড়ং, মীনা বাজার, নিউমার্কেট, রেলওয়ে মার্কেট, জলিল মার্কেট, আক্তার চেম্বার, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মার্কেট, খানজাহান আলী হকার্স মার্কেট ও অভিজাত এলাকার ফ্যাশন হাউজ ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

ছোট্ট সিফাতের (৮) পছন্দ ডোরেমন ও সুপারম্যানের ছবি সংবলিত টি-শার্ট। কিন্তু একই পোশাকে ২টি কার্টুনের ছবি মেলানো সম্ভব হচ্ছে না তার মা ফিরোজা বেগমের। তবুও বাচ্চার চাওয়াকে প্রাধান্য দিয়ে ঘুরছেন এক দোকান থেকে অন্য দোকানে।

একইভাবে বাচ্চার পছন্দের পোশাক মেলাতে হিমশিম খাচ্ছিলেন নাজমা সুলতানা। প্রজাপতি আঁকা পোশাক চাই তার মেয়ে সুমাইয়ার (৬)। কিন্তু প্রজাপতি আঁকা যে জামা তিনি পাচ্ছেন তার কাপড় মোটা। গরমে কোনোভাবেই বাচ্চাকে তা পরানো সম্ভব না। তাই বারবার সুমাইয়াকে বোঝানোর চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু সে তার বায়না থেকে সরছে না।

নাজমা সুলতালা অর্থসূচককে বলেন, বাচ্চারা আমাদের হাত ধরে ঈদের কেনাকাটা করতে আসলেও তাদের পছন্দেই পোশাক কেনে। আমাদের সময়ের মতো এখন আর বাচ্চাদের ওপর বড়দের সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেওয়া যায় না। ওরাই দোকান থেকে দোকান ঘুরে মিলিয়ে নেয় পছন্দের পোশাক।

তিনি জানান, বাচ্চাদের পছন্দ প্রাধান্য দিয়ে খুলনা মহানগরীর ফ্যাশন হাউজগুলো নানা রঙ, ফুল, প্রজাপতি ও কার্টুন সংবলিত পোশাকে এনেছে। শিশুদেরও পছন্দের শীর্ষে এসব পোশাক।

‘গাওগ্রাম ও পাড় ফ্যাশন হাউজ’ এর বিক্রেতারা জানান, শিশুদের সব খুশি ঈদের পোশাক ঘিরে। ছোট্ট সোনামণিদের ঈদ আনন্দকে আরও স্মরণীয় এবং আনন্দময় করে তোলার জন্য তারা বিভিন্ন রঙ ও ডিজাইনের পোশাক রেখেছেন।

নগরীর শান্তিধাম মোড়স্থ ফ্যাশন হাউজ ‘গৃহ সুখন’ এর মালিক মাসুমা রহমান জানান, তারা বড়দের পাশাপাশি ছোট্ট শিশুদের জন্যও হাল ফ্যাশনের সব পোশাক এনেছেন। শিশুদের পোশাকে বিশেষ গুরুত্ব পেয়েছে সুতি, হাতে বোনা কাপড়, অ্যান্ডি, শিফন ও সিল্ক। এর ওপর স্ক্রিন প্রিন্ট, ব্লক, হালকা কারচুপি ও মেশিন এমব্রয়ডারিতে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে উৎসবের রঙ। তিনি জানান, বাচ্চারা মা-বাবার সাথে আসলেও নিজেদের পছন্দেই পোশাক কিনছে।

শপিং মলের দোকানিরা জানিয়েছেন, এবার ছোটদের পোশাকে নানা রঙের কাপড়ের বাহারি ব্যবহারের সঙ্গে প্রিন্টের কাজ করা হয়েছে। প্রিন্টের মধ্যে স্ক্রিন ও ব্লক প্রিন্ট রয়েছে। এসব পোশাকের মধ্যে রয়েছে পাঞ্জাবি-পাজামা, শার্ট, ফতুয়া, টি-শার্ট, সালোয়ার-কামিজ ওড়না, ফ্রক, টপস ইত্যাদি। দাম পড়ছে ৩০০-৫,০০০ টাকা।

এএসএ/

এই বিভাগের আরো সংবাদ