মিরপুরের মার্কেট-ফুটপাতে সমান ব্যস্ততা
শনিবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » ঈদ ফ্যাশান

মিরপুরের মার্কেট-ফুটপাতে সমান ব্যস্ততা

কয়েকদিন পরই ঈদ। তাই দৈনন্দিন কাজের পাশাপাশি সবাই ব্যস্ত শেষ মুহূর্তের কেনাকাটায়। রাজধানীর নিউমার্কেট, এলিফ্যান্ট রোডসহ বিভিন্ন এলাকার মতো ঈদ বিক্রয় উৎসব দেখা গেছে মিরপুরেও। মিরপুর-১০ এ ব্র্যান্ডের পোশাকের শো-রুমের পাশাপশি ফুটপাতের দোকানগুলোতেও রয়েছে ঈদের ভিড়।

Mirpur Market

মিরপুর ১০ এর ফুটপাতে ভ্রম্যমাণ দোকানে ঈদের কেনাকাটা।

সরেজমিনে জানা গেছে, দাম তুলনামূলক কম হওয়ায় ফুটপাতেই ভিড় করছেন মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্তরা। ফুটপাতে পোশাকের পাশাপাশি জুতা ও স্যান্ডেলের দোকানেও ক্রেতাদের উপস্থিতি চোখে পড়ার মতো।

মিরপুরের শাহ আলী প্লাজা মার্কেটের জুতার দোকানের বিক্রয়কর্মীদের সাথে শনিবার কথা বলে জানা গেছে, পোশাক কেনার পর ক্রেতারা এখন জুতা-স্যান্ডেলের দিকেই বেশি নজর দিচ্ছেন। বিশেষ করে বাচ্চা ও নারীদের স্যান্ডেল ও জুতা বেশি বিক্রি হচ্ছে। নারীরা পোশাকের সাথে মিল করেই স্যান্ডেল কিনছেন।

শাহ আলী মার্কেটের লিবার্টি ফুটওয়ারে স্যান্ডেল কিনতে আসা সনিয়া রহমান বলেন, ঈদে পোশাক কেনার কাজ শেষ।এসেছি আমার শাড়ির সাথে মানানসই স্যান্ডেল ও বাচ্চার (৫ বছর) জুতা কিনতে।

বিক্রেতারা জানান, শো-রুমগুলোতে বাচ্চাদের পাশাপাশি মেয়েদের পোশাকই বেশি বিক্রি হচ্ছে। আর ছেলেদের পোশাকের মধ্যে রয়েছে পাঞ্জাবি ও টি-শার্ট।

Mirpur Market2

মিরপুর ১০ এর ফুটপাতে ভ্রম্যমাণ দোকানে ঈদের কেনাকাটা।

ছেলেদের পোশাক বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান ‘প্লাস পয়েন্ট’-এর মিরপুর শো-রুমের ব্যবস্থাপক জানান, শেষ মুহূর্তে বিক্রি বেড়েছে। গত বছরের তুলনায় এবছর বেশি বিক্রি হচ্ছে পাঞ্জাবি ও টি-শার্ট। ছুটির দিনের বিক্রি অনেক বেশি।

মেয়েদের পোশাক বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান ‘চন্দ্রবিন্দু’-এর মিরপুর ৩ নম্বর শো-রুমের ব্যবস্থাপক আনোয়ার হোসেন জানান, মেয়েদের পোশাকের মধ্যে পাখি, কারচুপি ও রাউন্ড পোশাকের চাহিদা বেশি। বিক্রিও ভালো।

একই এলাকার ‘পল্লী’ শো-রুমের বিক্রয়কর্মী শামীম আহমেদ জানান, সব ধরনের পোশাক বিক্রি হচ্ছে। তবে বাচ্চাদের পোশাকের চাহিদা বেশি। এর মধ্যে ছোট মেয়েদের ফ্রক ও পার্টি ড্রেসের চাহিদা বেশি।

মিরপুরের ফুটপাতের দোকানগুলোতেও পাওয়া যাচ্ছে সব ধরনের পোশাক। মেয়ে শিশুর জন্য পোশাক কিনতে আসা ময়না আক্তার জানান, শো-রুমগুলোতে বাচ্চাদের পোশাকের অনেক দাম। এতো দাম দিয়ে বাচ্চার পোশাক কেনা সম্ভব নয়। কিন্তু ঈদ বলে কথা; পুরনো পোশাক দিয়ে তো আর বাচ্চার ঈদ হয় না। তাই বাচ্চার জন্য ফুটপাতের দোকান থেকে পোশাক কিনছি।

ফুটপাতের বিক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, বিক্রির পরিমাণ অনেক বেশি। বিশেষ করে ছুটির দিনে ভিড় সামলাতে হিমশিম খাচ্ছেন তারা।

এসএই/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ