গ্রিন ব্যাংকিং বাস্তবায়নের সময় বাড়লো

Green Banking
গ্রীন ব্যাংকিং (ফাইল ছবি)

Green-banking-300ব্যাংকগুলোর জন্য গ্রিন ব্যাংকিং কার্যক্রম বাস্তবায়নের সময় বাড়ানো হয়েছে। ফলে গ্রিন ব্যাংকিংয়ের দ্বিতীয় পর্যায় বাস্তবায়নে এখন ব্যাংকগুলো ২০১৪ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত এবং তৃতীয় পর্যায়  ২০১৫ সালের জুন পর্যন্ত সময় পাবেন। তবে নতুন ব্যাংকগুলোর জন্য কোনো সময় বাড়ানো হয়নি। এর আগে দ্বিতীয় ও তৃতীয় পর্যায় ২০১৩ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ করতে বলা হয়েছিল।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংকের গ্রিন ব্যাংকিং অ্যান্ড সিএসআর বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে তফসিলভুক্ত সকল ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

দ্বিতীয় পর্যায়ে ব্যাংকগুলোকে পরিবেশের ওপর প্রভাব বিস্তারকারী খাতের জন্য আলাদা-আলাদা নীতিমালা, পরিবেশবান্ধব কৌশলগত পরিকল্পনা, পরিবেশবান্ধব উপায়ে শাখা স্থাপন করতে হবে। পরিবেশবান্ধব উপায়ে শাখা স্থাপন বলতে সেখানে বিদ্যুৎ খরচ কমাতে সোলার স্থাপন, কাগজের ব্যবহার কমানোর উপায় নির্ধারণ করতে হবে। আর তৃতীয় পর্যায়ে তাদেরকে নতুন নতুন পরিবেশবান্ধব পণ্য উদ্ভাবন, আন্তর্জাতিকমান সম্পন্ন প্রতিবেদন তৈরি করতে বলা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ব্যাংকের পরিবেশগত নীতি, কৌশল ও কর্মসূচির দেখভালের জন্য পরিচালনা পর্ষদের সমন্বয়ে গঠিত উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন কমিটিকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। কিন্তু সংশোধিত ব্যাংক-কোম্পানি আইন অনুসারে ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সদস্যদের সমন্বয়ে আলাদা অডিট কমিটি এবং নির্বাহী কমিটি করার বিধান রয়েছে। এছাড়া ব্যাংক-কোম্পানি আইনের ১৫ খ (৩) অনুচ্ছেদে প্রত্যেক ব্যাংককে ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা কমিটি গঠনের নির্দেশ দেওয়া হয়, এতে পর্ষদের সদস্যরা থাকতে পারেন। এই কমিটির দায়িত্বে ব্যাংকের পরিবেশগত নীতি ও কৌশলকে যুক্ত করা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে ব্যাংকগুলোর গ্রিন ব্যাংকিং ত্রৈমাসিক প্রতিবেদন দাখিলের সময়ও বাড়ানো হয়েছে। এখন থেকে প্রতি ত্রৈমাসিক প্রতিবেদন পরবর্তী মাসের ৩০ তারিখের মধ্যে জমা দিতে হবে।

এ প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গ্রিন ব্যাংকিং অ্যান্ড সিএসআর বিভাগের উপ-মহাব্যবস্থাপক খন্দকার মোর্শেদ মিল্লাত অর্থসূচককে বলেন, সংশোধিত ব্যাংক-কোম্পানি আইনে অডিট ও নির্বাহী কমিটির পর ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা কমিটি গঠনের সুযোগ রয়েছে। ব্যাংকের পরিবেশগত বিষয়গুলো পর্যালোচনায় উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন কমিটির কথা বলা হয়েছে। যেহেতু পর্ষদের সদস্যদের সমন্বয়ে আর কোনো কমিটি গঠন করা যাচ্ছে না, তাই কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পূর্বের নির্দেশনা অনুযায়ী, গ্রিন ব্যাংকিং কার্যক্রম তদারকে উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন কমিটির শর্ত রক্ষায় ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা কমিটির সঙ্গে একত্রিত করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

এসএই/এআর