খালি মাঠে গোল দিলে ‘ম্যারাডোনা’ হওয়া যায় না: কাদের সিদ্দিকী

kader-siddiki

kader-siddikiশেখ হাসিনার খালি মাঠে গোল দেওয়ার প্রসঙ্গ তুলে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেছেন, প্রতিপক্ষহীন খালি মাঠে গোল দিলে কখনই ‘ম্যারাডোনা’ হওয়া যায় না।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের ১৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে তিনি এ কথা বলেন।

কাদের সিদ্দিকী বলেন, খালি মাঠে ডজন ডজন গোল দিলেও আপনাকে কেউ খেলোয়াড় বলবে না। প্রতিযোগিতায় গোল দিলেই কেবল তার মূল্যায়ণ হয়।

অন্যের কাঁধে বন্দুক রেখে গুলি চালালে তা সঠিক জায়গায় পৌঁছায় না উল্লেখ করে তিনি বলেন,  সঠিক জায়গায় গুলি চালাতে হলে বন্দুকও সঠিক জায়গায় রাখতে হয়।

নতুন জোট গঠনের ঘোষণা দিয়ে তিনি বলেন, আগামি ২৬ ডিসেম্বর বিকল্পধারা বাংলাদেশ, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল ও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ নিয়ে একটি নতুন জোট গঠন করা হবে। পরে জেলা, উপজেলার নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে নিবার্চন বন্ধে আমলাদের মাধ্যমে সরকারকে স্মারকলিপি দেওয়া হবে।

এ সময় নিবার্চনী কাজে দায়িত্বশীলদের নিবার্চন বর্জনের আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, দেশের মানুষ এ প্রহসনের ভোট চায় না। তাই আমরাও চাই না।

কাদের মোল্লার রায় ঘোষণার পর পাকিস্তান যে নিন্দা প্রস্তাব জানিয়েছে তার সমালোচনা করে তিনি বলেন, পাকিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশের সর্ম্পক ছিন্ন করার পরামর্শ দেন। একই সঙ্গে পাকিস্তানের এ ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণের জন্য বাংলাদেশের কাছে তাদের ক্ষমা চাওয়া উচিত বলেও দাবি জানান তিনি।

দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে কাদের সিদ্দিকী বলেন, কৃষক শ্রমিক-জনতা-লীগের কর্মীরা নিবার্চন সংশ্লিষ্ট সকলকে নিবার্চন সংক্রান্ত কোনো কাজে না যেতে অনুরোধ করবেন। একবার অনুরোধ না রাখলে প্রয়োজনে বারবার অনুরোধ করা হবে। তবে অনুরোধ না শুনলে কোথাও আগুন দেয়া যাবে না। কেউ কোথাও আগুন দিলে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হবে। যতক্ষণ পর্যন্ত পারা যায় ততক্ষণ পর্যন্তস অহিংস ও সুশৃংখল  আন্দোলন করতে হবে।

বিরোধী দলের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন,অবরোধের নামে একটা করে ‘লাল’ পটকা ফুটানো হচ্ছে। এতে রাজনীতি ও দেশের মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। কাউকে পোড়ানোর জন্য রাজনীতি নয়, শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্যই রাজনীতি।

সমাবেশে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বিকল্পধারা বাংলাদেশ সভাপতি ডা: এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী,জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লে. জে. (অব.) মাহবুবুর রহমান, এলডিপি মহাসচিব মেজর (অব.) আবদুল মান্নান, জাতীয় পাটির স্ব-ঘোষিত চেয়ারম্যান কাজী জাফর প্রমুখ।

জেইউ/