‘বিএসইসির নতুন স্বীকৃতি বিদেশী বিনিয়োগ বাড়াবে’

BSEC_ASইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন অব সিকিউরিটিজ কমিশনে (আইওএসসিও) বিএসইসির সদস্য পদ এ ক্যাটাগারিতে উন্নীত হওয়ায় দেশের পুঁজিবাজার নানাভাবে লাভবান হবে। আইওএসসিও’র এ স্বীকৃতিতে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশ ও বিএসইসির ভাবমূর্তি বেড়েছে।

মঙ্গলবার দেশে ব্যবসা-বাণিজ্য বিষয়ক প্রথম ও একমাত্র অনলাইন পত্রিকা অর্থসূচকের পক্ষ থেকে বিএসইসিকে আনুষ্ঠানিক অভিনন্দন জানানোর সময় সংস্থাটির নীতিনির্ধারকরা এ কথা বলেন। আইওএসসিও গত সপ্তাহে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সদস্য পদ বি ক্যাটাগরি থেকে এ ক্যাটাগরিতে উন্নীত করে। এ অসাধারণ সাফল্যের জন্য মঙ্গলবার অর্থসূচক সম্পাদক জিয়াউর রহমান পত্রিকার সব কর্মীর পক্ষ থেকে বিএসইসি চেয়ারম্যান প্রফেসর ড.খায়রুল হোসেনকে পুস্পস্তবক দিয়ে অভিনন্দন জানান। এ সময় নিয়ন্ত্রক সংস্থার চার কমিশনার প্রফেসর মোঃ হেলাল উদ্দিন নিজামী, আরিফ খান, আমজাদ হোসেন  ও মোঃ আব্দুস সালাম সিকদার এবং অর্থসূচকের স্টাফ রিপোটার গিয়াস উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

প্রফেসর ড.খায়রুল হোসেন বলেন,সদস্য পদের ক্যাটাগরি পরিবর্তনে বিএসইসি যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাতারে উন্নীত হয়েছে। এটি দেশের পুঁজিবাজারকে এক ধাপ এগিয়ে দিয়েছে।

বিএসইসি চেয়ারম্যান বলেন, চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যেও যে সংস্থাটি পুঁজিবাজারের উন্নয়নে কার্যকর অবদান রেখে চলেছে এ অর্জন তারই স্বীকৃতি।

কমিশনার আরিফ খান বলেন, এ স্বীকৃতির ফলে বিদেশি বিনিয়োগকারী এখন এ বাজারের প্রতি আরও বেশি আস্থা পাবে। এতে আগামি দিনে দেশের পুঁজিবাজারে বিদেশী বিনিয়োগ বাড়বে।

অর্থসূচক সম্পাদক জিয়াউর রহমান বিষয়টিকে শুধু বিএসইসি নয়, দেশের একটি বড় অর্জন হিসেবে অভিহিত করেন। তিনি বলেন, একটি সাফল্য ও অর্জন নতুন আরেকটি অর্জনের জন্য উদ্বুদ্ধ করে। আমরা, অর্থসূচক পরিবার মনে করি, প্রতিটি সাফল্যকে উদযাপন করা উচিত। এর আনন্দের ভাগ সবার মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়া প্রয়োজন। এতে অন্যরাও উজ্জ্বীবিত হবে।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার রাতে স্পেনের মাদ্রিদে অবস্থিত আইওএসসিওর প্রধান কার্যালয় থেকে ক্যাটাগরি পরিবর্তনের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

এর ফলে বিএসইসি আন্তর্জাতিকভাবে এনফোর্সমেন্টের জন্য বৃহত্তর সহযোগিতা পাবে। অন্যদেরকেও সহযোগিতা দিতে পারবে। বিএসইসি আইওএসসিওর বিভিন্ন নেতৃস্থানীয় পদে নিয়োগ/নির্বাচন করতে পারবে। ভূমিকা রাখতে পারবে আইওএসসিওর নীতিনির্ধারণে।

এর আগে ২০০৯ সালে বিএসইসির পক্ষ থেকে আইওএসসিওর কাছে ক্যাটাগরি পরিবর্তনের জন্য প্রথম আবেদন করা হয়। এরপর দ্বিতীয়বার আবেদন করা হয় ২০১২ সালে।

বিভিন্ন দেশের পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থার সমন্বয়ে গঠিত শীর্ষস্থানীয় আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান আইওএসসিওর সাধারণ সদস্য হিসেবে ১৯৯৫ সালে বিএসইসি যোগ দেয়।