জাপানের সামরিক শক্তি বৃদ্ধির ঘোষণায় চিনের সমালেচনা

japan- chinaজাপান তার নতুন জাতীয় নিরাপত্তা কৌশল অনুযায়ী সপ্তাহের শুরুতে ড্রোন এবং উভচর যানসহ আধুনিক সামরিক সরঞ্জাম ক্রয়ের ঘোষণা দেয়। গতকাল এই ঘোষণার সমলোচনা করেছে চিন। এক বার্তায় চিনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র গেং ইয়ানশেং জানান, এই ধরনের পদক্ষেপ আঞ্চলিক অস্থিতিশীলতা বৃদ্ধির কারণ হয়ে দাড়াতে পারে খবর সিনহুয়া বার্তা সংস্থার।

ঘোষণা অনুযায়ী দেশটি আগামি পাঁচ বছরের মধ্যে প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্র, সাবমেরিন, ড্রোন এবং মার্কিন জঙ্গী বিমানসহ নানা ধরনের সামরিক সরঞ্জাম ক্রয় করবে। পূর্ব চিন সাগরে অবস্থিত একটি দ্বীপের মালিকানা নিয়ে তিক্ততার জের ধরে জাপান এই ঘোষণা দেয়।

এর আগে জাপানের মালিকানাধীন ঐ দ্বীপকে অন্তর্ভূক্ত করে চিন নতুন বিমান প্রতিরক্ষা অঞ্চল গঠনের ঘোষণা দিলে এই তিক্তাতার শুরু হয়।

জনাব গেং বলেন, জাপানের এই ধরনের কর্মকান্ডের সম্পূর্ণ বিরোধিতা করছে চিন। তিনি জাপানের এই কৌশলকে অন্যায় সামরিক শক্তি বিস্তারের পায়তারা বলে অভিহিত করেন।

উল্লখ্য, সামরিক সক্ষমতার দিক থেকে যুক্তরাষ্ট্রের পরেই চিনের অবস্থান এবং এই তালিকায় জাপানের অবস্থান পঞ্চম।