কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থগিতের দাবিতে গণজাগরণ মঞ্চের স্মারকলিপি

gonojagoron moncho

gono_monchoবাংলাদেশের সবধরনের কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থগিতের দাবিতে  গণজাগরণ মঞ্চ পররাষ্ট্র ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি দিয়েছে।

রোববার দুপুর সোয়া একটায় গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকারের প্রতিনিধিত্বে সাত সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল স্মারকলিপিটি দিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে যান।

স্মারকলিপিটি দিতে গিয়ে তারা আইনশৃংখলা বাহিনীর বাধার সম্মুখীন হয়।  আইনশৃংখলা বাহিনীর সাথে বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী ইমরান এইচ সরকার ও মারুফ রসূলকে সাক্ষাতের অনুমতি দেয়। এরপর তারা পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীকে এ স্মারকলিপি প্রদান করেন। কুটনৈতিক সম্পর্ক স্থগিত করার দাবির প্রসঙ্গটি নিয়ে তারা মন্ত্রীর সঙ্গে আধা ঘণ্টাব্যাপী আলোচনা করেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ শেষে ইমরান এইচ সরকার সাংবাদিকদের বলেন, কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকর নিয়ে পাকিস্তান যে ভূমিকা পালন করেছে তাতে ক্ষমা না চাওয়া পর্যন্ত তাদের সাথে বাংলাদেশের সবধরনের কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থগিতের দাবিতে আমরা মন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি দিয়েছি।

আমরা সাতদিন অপেক্ষা করব এবং ফলাফল জেনে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করব উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ সময় মন্ত্রী কিছু সীমাবদ্ধতার কথা জানিয়েছেন। তবে তিনি আমাদের আশ্বস্ত করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের সাজার প্রসঙ্গে পাকিস্থানের এমন নগ্ন ভূমিকা  নিয়ে ইতোমধ্যেই আন্তর্জাতিকভাবে আলোচনা শুরু হয়েছ।

সার্কের উপর এর কোনও প্রভাব পড়বে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, যেহেতু পাকিস্তান ও বাংলাদেশ উভয়ই সার্কের সদস্য তাই আমরা সার্কের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তাদের শিগগিরই একই রকম অনুলিপি  দেব।

পররাষ্টমন্ত্রণালয় থেকে বের হয়ে গণজাগরণ মঞ্চের প্রতিনিধি দলটি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি নিয়ে যায়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এপিএসের কাছে স্মারকলিপিটি দেওয়া হয়।

এমআর/