লক্ষ্যমাত্রা 'ছাড়িয়েছে' বোরো উৎপাদন
শনিবার, ৭ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » অর্থনীতি

লক্ষ্যমাত্রা ‘ছাড়িয়েছে’ বোরো উৎপাদন

boro season paddy collection

ফাইল ছবি

সরকারের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যেতে পারে বোরো উৎপাদন। চলতি ২০১৩-২০১৪ মৌসুমের শুরুতে ১ কোটি ৮৯ লাখ ১৬ হাজার টন বোরো উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছিল সরকার। আর মৌসুম শেষে ৭ লাখ ৭০ হাজার টন বেশি বোরো আহরণের সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে।

সম্প্রতি কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

বোরো মৌসুমে দেশের মোট চাহিদার বিরাট অংশ উৎপাদিত হয়। এই মৌসুমের উৎপাদনের ওপর ভিত্তি করে বছরজুড়ে সরবরাহ ও দাম নিয়ন্ত্রিত হয়।

তাই সবরাহ ও বাজার নিয়ন্ত্রেণের লক্ষ্যে সরকার ২০১৩-২০১৪ মৌসুমে ৪৭ লাখ ৮০ হাজার হেক্টর জমিতে ১ কোটি ৮৯ হাজার ১৬ হাজার টন বোরো উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে।

কিন্তু কৃষি শ্রমিকের সংকট ও উত্তরবঙ্গে পানি স্বল্পতার কারণে এই লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সংশয় জানিয়েছিলেন কৃষিবিদরা।

আশার কথা হল, তেমন কোনো বড় দুর্যোগ না ঘটায় জটিলতা ছাড়াই এই লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হতে চলেছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানিয়েছে, চলতি মৌসুমে আরও অতিরিক্ত ২৩ হাজার হেক্টরে বোরো চাষ করেছেন কৃষকরা। ফলশ্রতিতে এবার ১ কোটি ৯৬ লাখ ৮৫ হাজার ধান আহরণের সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে, যা সরকারি লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে প্রায় ৭ লাখ ৭০ হাজার টন বেশি।

উল্লেখ্য, ২০১২-২০১৩ বোরো মৌসুমে ১ কোটি ৮৭ লাখ ৭৮ হাজার ১৫৭ টন খাদ্যশস্য উৎপাদিত হয়েছিল।

অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, মাঠপর্যায়ে ধান সংগ্রহের ওপর ভিত্তি করে সম্ভাব্য বোরো উৎপাদনের উপাত্ত তৈরি করা হয়েছে। তারা জানান, দেশজুড়ে ইতোমধ্যেই ৯৯ শতাংশ ফসল ঘরে তুলেছেন কৃষকরা।

তারা আরও জানান, এবার উচ্চ ফলনশীল ও সংকর জাতের ধান চাষ করে বেশ ভালো সুফল পেয়েছেন কৃষকরা। এসএল-৮ এইচ নামের এক সংকর জাতের ধান চাষ করে প্রতি হেক্টরে ১০ টন শস্য উৎপাদিন করেছেন চাষীরা।

এই বিভাগের আরো সংবাদ