যমুনা অয়েলের বোর্ড সভা বৃহস্পতিবার

jamuna-Oil-logoপুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত জ্বালানি-বিদ্যুত খাতের কোম্পানি যমুনা অয়েলের পরিচালনা পর্ষদের সভা আগামি ২১ নভেম্বর, বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে। এ বৈঠকে গত ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষা প্রতিবেদন ও শেয়ারহোল্ডারদের জন্য লভ্যাংশ অনুমোদন পাবে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

তালিকাভুক্ত তিনটি তেল বিপনন কোম্পানির মধ্যে মেঘনা পেট্রোলিয়াম ও পদ্মা অয়েল ইতোমধ্যে সর্বশেষ হিসাব বছরের জন্য লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এদের মধ্যে পদ্মা অয়েল ১০০ শতাংশ লভ্যাংশ দিয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে ৯০ শতাংশ নগদ ও ১০ শতাংশ বোনাস। কোম্পানির শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস দাঁড়িয়েছে ২৭ টাকা ৬২ পয়সা।

 

অন্যদিকে মেঘনা পেট্রোলিয়াম ৯০ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে, যার মধ্যে ৭০ শতাংশ নগদ ও ২০ শতাংশ বোনাস রয়েছে। এ কোম্পানি শেয়ার প্রতি আয় করেছে ২৫ টাকা ৬১ পয়সা।

সর্বশেষ বছরে দুটি কোম্পানিরই মুনাফায় প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৫৫ শতাংশের কাছাকাছি। একই ধারা যমুনা অয়েলেও থাকতে পারে বলে এ খাতের বিশ্লেষকরা মনে করেন। কারণ বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি) সারা বছর যে তেল আমদানি করে তা তিনটি কোম্পানির মাধ্যমে বিক্রি করে থাকে। এ ক্ষেত্রে তিনটি প্রতিষ্ঠানই প্রায় সমান পরিমাণ তেল বিক্রি করে। এ ক্ষেত্রে ব্যবস্থাপনা ও বিপনন ব্যয়সহ বিভিন্ন ধরনের খরচে ভিন্নতা থাকায় নেট মুনাফার কিছুটা হেরফের হয়।

 

উল্লেখ, আগের বছর যমুনা অয়েল ৭৫ শতাংশ লভ্যাংশ দিয়েছিল, যার মধ্যে ছিল ৪৫ শতাংশ নগদ ও ৩০ শতাংশ বোনাস। কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ২৯ টাকা ৬২ পয়সা।বোনাস লভ্যাংশের কারণে শেয়ার সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় যার প্রকৃত হার দাঁড়ায় ২২ টাকা ৭৮ পয়সা (ডাইলুটেড ইপিএস)।