সবচেয়ে কম পিই জ্বালানি খাতের, বেশি পেপার ও প্রিন্টিংয়ে
শনিবার, ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » পুঁজিবাজার

সবচেয়ে কম পিই জ্বালানি খাতের, বেশি পেপার ও প্রিন্টিংয়ে

পুঁজিবাজারে উর্ধগতিতে বাড়ছে বিভিন্ন কোম্পানির শেয়ার প্রতি মূল্য আয়ের অনুপাত বা পিই রেশিও। এর প্রভাবে সংশ্লিষ্ট dseখাতের মূল্য আয় অনুপাতও বাড়ছে। গত এক মাসের ব্যবধানে বিবিধ খাতে পিই রেশিও বেড়েছে ৮৬ শতাংশ। পেপার ও প্রিন্টিং খাতে৪৪ শতাংশ, ট্রাভেল খাতে ৪২ শতাংশ, সার্ভিস সেক্টরে ২৪ শতাংশ ও ব্যাংকের পিই রেশিও ১৯ শতাংশ বেড়েছে।

বর্তমানে বাজারে সবচেয়ে বেশি পিই রেশিও পেপার ও প্রিন্টিং খাতের। এর পিই ৭৫ দশমিক ৫, যা এক মাস আগেও ছিল ৫২। অন্যদিকে সবচেয়ে কম পিই রেশিও জ্বালানি ও বিদ্যুত খাতের। এই খাতের পিই রেশিও ১১ দশমিক ৮ যা আগে ছিল ১১ দশমিক ৩।

 

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ২০ খাতের মধ্যে জীবন বিমা খিাতের কোম্পানিগুলো শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস প্রকাশ করে না। এ কারণে এদের পিই রেশিও প্রকাশ করা সম্ভব নয়। অন্যদিকে মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট ইক্যুইটি শেয়ার নয় বলে অন্য শেয়ারের সঙ্গে তুলনার উপযোগী নয়। বাকী ১৮ টি খাতের মধ্যে দুটি ছাড়া বাকী সবগুলোর পিই রেশিও ১৫ বা তার বেশি।

 

গত সপ্তাহে লেনদেন শেষে খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাতের পিই রেশিও দাঁড়ায় ৩০ দশমিক ৩, যা আগে ছিল ২৮ দশমিক ৮। সেবা ও আবাসন খাতের পিই ২৪ দশমিক ৮ (২০), আইটি খাতের ২৪ দশমিক ৫ (২১.৪), ভ্রমণ ও অবসর খাতের ২৩ দশমিক ৫ (১৩.৬), সিরামিক খাতের ২২ দশমিক ৫ (১৯.৯), প্রকৌশল খাতের ২১ দশমিক ৩ (১৯.৯), বস্ত্র খাতের  ১৯ দশমিক ৩ (১৯.৬), টেলিকমিউনিকেশন খাতের ১৯ দশমিক ২ (১৯.৩),ওষুধ খাতের ১৯ দশমিক ১ (১৯.২), এনবিএআই খাতের ১৮ দশমকি ৭ (১৭.৮),সিমেন্ট খাতের ১৮ দশমিক ৫ (১৮.৬), সাধারণ বিমা খাতের ১৬ দশমিক ৮ (১৬.৩), ব্যাংক খাতের ১৬ দশমিক ৪ (১৩.৯।

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ