নির্বাচন নিয়ে সরকার-এরশাদের নাটক অত্যন্ত নিম্নমানের : বি.চৌধুরী

B-Chawdhuryনিবার্চন নিয়ে সরকার-এরশাদ যে নাটক করছে তা ইতিহাসের অত্যন্ত নিম্নমানের নাটক বলে মন্তব্য করলেন বিকল্পধারা বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি ড. বদরুদ্দোজা চৌধুরী।

শুক্রবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের জাতীয় পার্টি (কাজী জাফর) আয়োজিত নির্দলীয়, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নতুন নির্বাচন শীর্ষক বিশেষ কাউন্সিল অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন।

অবরোধ কর্মসূচি প্রত্যাহার ও নৈরাজ্য বন্ধ করে বিরোধী দলকে নির্বাচনে আসতে হবে প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, বিরোধী দল যদি প্রধানমন্ত্রীর এ কথা অনুযায়ী তাদের কর্মসুচি থেকে পিছপা হন এবং কর্মসূচি প্রত্যাহার করে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করে তা হলে আল্লাহর কাছে ক্ষমা চেয়ে আমি রাজনীতি ছেড়ে দিব।
দেশে কোন গণতান্ত্রিক সরকার নেই মন্তব্য করে তিনি বলেন, যে সরকারের মধ্যে গণতন্ত্র ও দেশ প্রেম নেই, যারা প্রধান বিরোধী দলের দাবিকে কর্ণপাত না করে তাদের প্রতিবাদের ভাষা কেড়ে নিয়ে এক তরফা নির্বাচনের দিকে ধাবিত হয়ে দেশকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে তাদের মুখে গণতন্ত্র মানায় না।

এ সময় স্বৈরাচার সরকার পতনের আন্দোলন শুরু হয়েছে মন্তব্য করে দেশবাসীর উদ্দেশ্যে জেএসডির সভাপতি আ.স.ম আব্দুর রব বলেন, ঢাকাবাসী ও দেশের জনগণ সবাই প্রস্তুত থাকুন লড়াই শুরু হয়েছে, এ লড়াই গণতন্ত্র, অর্থনীতি, মানবাধিকার ও ভাতের জন্য লড়াই। এ লড়াইয়ে জয়ী হতে না পারলে আমাদের মৌলিক অধিকার বলতে কিছু থাকবে না। সব কিছু একজন ব্যক্তির হাতে জিম্মী হয়ে যাবে। দেশে বাকশাল কায়েম হয়ে যাবে। তাই এখনই তাদের প্রতিরোধ করতে হবে।

শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আপনি যেটা করছেন, সেটা রাজনীতি নয়, সেটা হচ্ছে দলবাজী, এখনো সময় আছে এ দলবাজী বন্ধ করে সুষ্ঠু ধারার রাজনীতিতে ফিরে আসুন। অন্যথায় আপনাদের পতনের ভয়াবহ চিত্র কল্পনা করতে পরবেন না।
জাতীয় পার্টির অুনষ্ঠানে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বলেন, গণতান্ত্রক দেশে একটি রাজনৈতিক দলের অনুষ্ঠানে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা নজিরবীহিন।

এ ককটেল বিস্ফারণের ঘটনায় সরকারর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও ডিবি পুলিশ সম্পৃক্ত ছিল, তা না হলে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটতো না বলেও জানান তিনি।
জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান কাজী জাফর আহমেদের সভাপতিত্বে উপস্থিত আছেন, সাবেক রাষ্ট্রপতি একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য টিএআইএম ফজলে রাব্বি চৌধুরী, খেলাফত মজলিশের নেতা মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী প্রমুখ।

জেইউ/