জাবি ছাত্রকে মারধর; গাড়ি আটকে ছাত্রলীগের চাঁদা দাবি
শুক্রবার, ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » শিক্ষা

জাবি ছাত্রকে মারধর; গাড়ি আটকে ছাত্রলীগের চাঁদা দাবি

juজাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রকে মারধরের ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের তিতাস পরিবহনের ৫টি গাড়ি আটকে চাঁদা দাবি করেছে শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

বৃহস্পতিবার মীর মশাররফ হোসেন হলের ছাত্রলীগ নেতারা তিতাস পরিবহনের মালিক পক্ষের কাছে এ চাঁদা দাবি করে। তবে তারা চাঁদাবাজির অভিযোগ সাংবাদিকদের কাছে অস্বীকার করেছে। এ ঘটনার ছবি তুলতে গেলে  দুজন সাংবাদিককে ছবি তুলতে দেয় নি ওই হলের ছাত্রলীগ কর্মীরা।

জানা যায়, মীর মশাররফ হোসেন হলের  ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র কাননের (৪২তম ব্যাচ) সঙ্গে ভাড়া নিয়ে তিতাস পরিবহনের সুপার ভাইজারের কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় গাড়ির চালক ও হেলপার তাকে মারধর করে গাড়ি ফেলে দেয় বলে সে অভিযোগ করেন। সে সময় কানন হাত পায়ে ব্যাথা পায়। পরে তাকে সাভারের এনাম মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

তবে ওই হলের এক ছাত্রলীগ নেতা জানান, গুরুতর আহত না হলেও কাননকে জোর করে হাসপাতালে ভর্তি করায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।  মোটা অঙ্কের টাকা নেওয়ার জন্য তারা নাটক শুরু করেছে।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক-সম্পাদক ফয়সাল হোসেন দ্বীপু, ধর্মবিষয়ক-সম্পাদক মহিতোষ টিটো রায় ও উপ-সমাজসেবা সম্পাদক বশিরুল হকের নেতৃত্বে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক থেকে তিতাস পরিবহনের ৫টি গাড়ি আটক করে মোটা অঙ্কের চাঁদা দাবি করে।  এ সময় মালিক পক্ষ চাঁদা দিতে অস্বীকার করে ক্যাম্পাস থেকে চলে যায়।

তবে চাঁদাবাজির বিষয় অস্বীকার করেছেন ছাত্রলীগের ওই নেতারা। তারা পাল্টা অভিযোগ করে বলেন, ওই শিক্ষার্থীর মোবাইল ফোন নষ্ট হয়ে গেছে। এর ক্ষতিপূরণসহ  তার সমস্ত চিকিৎসার খরচ দিতে হবে।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগের সাধারণ-সম্পাদক রাজিব আহমেদ রাসেল বলেন, গাড়ি আটকের বিষয়টি শুনেছি। বিষয়টি সমাধান করার জন্য প্রক্টর স্যারকে বলা হয়েছে।

প্রক্টর অধ্যাপক মোহাম্মদ মুজিবুর রহমান বলেন, ৫টি গাড়ি আটকের বিষয় শুনেছি।  এ বিষয়টি সমাধানের জন্য মালিক পক্ষকে চিকিৎসার খরচ দিতে বলা হয়েছে।

এই বিভাগের আরো সংবাদ