ভুল প্রজ্ঞাপন জারি করল আইডিআরএ

স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার না করেই বাস্তবায়নের সময় বাড়িয়ে ভুল প্রজ্ঞাপন জারি করেছে বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সংস্থার পরিচালক মো. শাহ আলম এই প্রজ্ঞাপন জারি করেন।

নতুন এই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, উন্নয়ন কর্মকর্তাদেরকে এজেন্ট হিসেবে রুপান্তরের প্রক্রিয়া যৌক্তিকভাবে সম্পন্ন করার স্বার্থে এবং বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স এসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স ফোরামের সঙ্গে গত ২৯ সেপ্টেম্বর সভায় ফলপ্রসু আলোচনা হয়েছে। ওই আলোচনার প্রেক্ষিতে আইডিআরএ গত ১০ ফেব্রুয়ারি তারিখে জারিকৃত ‘সারকুলার নং-নন-লাইফ ৭৫/২০২০’ এর বাস্তবায়ন সময়সীমা ডিসেম্বর ২০২০ পর্যন্ত নির্দেশক্রমে বৃদ্ধি করা হলো। কিন্তু এই প্রজ্ঞাপনে স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করা হয়নি।

এর আগে গত ২৭ আগস্ট চেয়ারম্যান ড. মোশাররফ হোসেন এ সংক্রান্ত এক প্রজ্ঞাপন জারি করেন। তাতে বলা হয়, উন্নয়ন কর্মকর্তাদেরকে এজেন্ট হিসেবে রুপান্তরের প্রক্রিয়া যৌক্তিকভাবে সম্পন্ন করার স্বার্থে এবং বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স এসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স ফোরামের সঙ্গে গত ২৯ সেপ্টেম্বর সভায় ফলপ্রসু আলোচনা হয়েছে। ওই আলোচনার প্রেক্ষিতে আইডিআরএ গত ১০ ফেব্রুয়ারি তারিখে জারিকৃত ‘সারকুলার নং-নন-লাইফ ৭৫/২০২০’ এর কার্যকারিতা সেপ্টেম্বর পর্যন্ত স্থগিত করা হলো।

নিয়ম অনুসারে স্থগিতাদেশ নিয়ে নতুন করে সার্কুলার করা হলে প্রথমে তার বর্ণনা দিতে হয়। এরপর উল্লেখ করতে হয় সার্কুলারের সময় তথা স্থগিতাদেশের সময় আরও বাড়ানো হলো।

তার আগে চলতি বছরের ১০ ফেব্রুয়ারি তৎকালীন চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান পাটোয়ারী স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, শুধুমাত্র আইডিআরএ’র লাইসেন্সধারী এজেন্টকে ৫ শতাংশ অগ্রিম কর কর্তন করে ১৪ দশমিক ২৫ শতাংশ কমিশন পরিশোধ নিশ্চিত করার স্বার্থে নিন্মোক্ত বিষয়গুলো যথাযথভাবে প্রতিপালন করার জন্য সারর্কুলার জারি করা হলো।

১. পহেলা মার্চ ২০২০ তারিখ থেকে নন-লাইফ বীমা কোম্পানিগুলোর ব্যবসা আহরণের নিমিত্ত সকল উন্নয়ন কর্মকর্তাদেরকে কমিশনের ভিত্তিতে বীমা এজেন্ট হিসেবে পদায়ন করতে হবে।

২. বীমা আইন, ২০১০ এর ৫৮(১) ধারা অনুযায়ী নন-লাইফ বীমা কোম্পানির বীমা এজেন্ট ব্যতীত অন্য কারও কমিশন বা অন্য কোনো নামে পারিশ্রমিক বা পরিতোষিক পরিশোধ না করার যে আইন রয়েছে তা যথাযথভাবে প্রতিপালন নিশ্চিত করতে হবে।
৩. নন-লাইফ বীমা কোম্পানিগুলোর বেতন-ভাতা খাতের বাৎসরিক ভিত্তিতে নিট প্রিমিয়ামের উপর ১০ শতাংশের বেশি ব্যয় করা যাবে না।

অর্থসূচক/এমআই/কেএসআর