বিমার টাকা পেতে নিজের হাত কেটে ফেললেন তরুণী!

অর্থ উপার্জনের একাধিক উপায় থাকে। সৎ পথে সমস্যা না হলেও, অসৎ পথে অর্থ উপার্জন করতে গেলে ধরা পড়ার সম্ভাবনাও কিন্তু থাকে। আর ঠিক এমনটাই ঘটেছে স্লোভেনিয়ার এক ২২ বছর বয়সি তরুণীর সঙ্গে। বিমার টাকা পেতে নিজেই নিজের হাত কেটে বসলেন জুলিজা আদেলেসিক নামে ওই তরুণী। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না, ধরা পড়ে গেলেন।

তবে ধরা পড়েই সব শেষ হলো না। তারপরই সেখানকার স্থানীয় একটি আদালত ওই তরুণীকে দু’‌বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেন। এছাড়া তার সঙ্গীকে গোটা পরিকল্পনাটির জন্য তিন বছরের সাজা দেন আদালত।

জানা গিয়েছে, ওই তরুণী প্রথমে নিজের হাতের বিমা করান। তাতে বলা হয়, কোনও কারণে হাত বাদ গেলে ক্ষতিপূরণ বাবদ এককালীন মোটা টাকার পাশাপাশি প্রতি মাসেও অর্থ পাবেন তিনি। যার পরিমাণ বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় পৌনে চার কোটি টাকার সমান। এরপর নিজের এক সঙ্গী ও আরও দুই বন্ধুকে নিয়ে গোটা পরিকল্পনাটি বাস্তবায়িত করেন তিনি। একটি ধারাল অস্ত্র দিয়ে নিজেই নিজের হাত কেটে ফেলেন। এরপর হাসপাতালে যান সেই হাতটি ছাড়াই। যাতে তার হাত পুরোপুরি ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং তিনি তিনগুণ টাকা পান।

এরপর খবর দেওয়া হয় বিমা কোম্পানিগুলোকেও। কিন্তু কোনওভাবে কাটা হাতটি উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসেন এক আধিকারিক। এরপরই বেরিয়ে আসে সত্যিটা।

ঘটনায় অনেকেই অবাক হয়ে যান। অনেকেই এই প্রশ্ন তোলেন, টাকার জন্য নিজের হাত কীভাবে বাদ দিতে পারে একজন?
এ ঘটনার পর মামলা দায়ের হয় ওই তরুণীর নামে। তদন্তও শুরু হয়। দেখা যায়, ঘটনার কিছু আগেই পাঁচটি পৃথক কোম্পানিতে ওই তরুণী নিজের হাতের বিমা করিয়েছিলেন। আর এরপরই তাকে দু’‌বছরের এবং তার সঙ্গীকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত।

অর্থসূচক/কেএসআর