প্রবাসী সরকারি কর্মকর্তাদের ২ শতাংশ প্রণোদনা দেবে সরকার

প্রবাসে থাকা সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য নতুন সুখবর দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। প্রবাসীরা দেশে টাকা পাঠালে ২ শতাংশ হারে যেদিন থেকে প্রণোদনা দেয়া শুরু করা হয়েছিল এবার প্রবাসে থাকা সরকারি কর্মকর্তাদেরও একইদিন থেকে প্রণোদনা দেয়ার কথা বলেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

২০১৯ সালের ১ জুলাই থেকে শুধু প্রবাসীদের জন্য দুই শতাংশ হারে প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে। পরে চলতি বছরের ১১ মার্চ এক প্রজ্ঞাপনে বাংলাদেশ ব্যাংক জানায়, শিপিং লাইন, পাইলট, মেরিনার ও সরকারের কর্মকর্তারা বিদেশে থেকে আয়ের টাকা দেশে পাঠালে প্রণোদনা পাবেন। ফলে কর্মকর্তারা তখন থেকেই প্রণোদনা পাচ্ছেন।

কিন্তু গেল বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংক প্রবাসে থাকা সরকারি কর্মকর্তাদের প্রণোদনা নিয়ে নতুন করে নির্দেশনা দিয়েছে। ব্যাংকগুলোকে দেয়া ওই নির্দেশনা কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলেছে, সরকারি কর্মকর্তাদের প্রণোদনা ২০১৯ সালের ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রানীতি বিভাগ থেকে দেয়া নির্দেশনায় বলা হয়, চলতি বছরের ১১ মার্চ প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে জানানো হয়েছিল- বাংলাদেশি মালিকানাধীন শিপিং লাইনস ও এয়ারলাইনস কোম্পানির বিদেশ অফিসে (বাংলাদেশ সরকার বা সরকারের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান ব্যতীত) ও বিদেশি শিপিং লাইনস ও এয়ারলাইনসে কর্মরত বাংলাদেশি মেরিনার ও এয়ারক্র্যাফট পাইলট এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জাতিসংঘ বা অন্যান্য সংস্থা, প্রতিষ্ঠান এবং বিদেশি মিশনে (বাংলাদেশ সরকার বা সরকারের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান ব্যতীত) কর্মরত বাংলাদেশি কর্মকর্তারা বিদেশে অবস্থানকালে অর্জিত অর্থ বৈধ উপায়ে দেশে পাঠালে ওই অর্থের ওপর নগদ সহায়তা প্রাপ্যতার বিষয়টি অবিলম্বে নিশ্চিত করতে হবে। তবে সম্প্রতি লক্ষ করা যাচ্ছে, সেই প্রজ্ঞাপনের বর্ণিত অবিলম্বে কার্যকর বলতে কোনো কোনো ব্যাংক ২০১৯ সালের ১ জুলাই এবং কোনো কোনো ব্যাংক প্রজ্ঞাপনের তারিখ থেকে প্রবাসী আয় বিবেচনা করে গ্রাহককে ২ শতাংশ নগদ সহায়তা প্রদান করছে। এতে করে গ্রাহকদের মধ্যে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হচ্ছে। তাই নতুন করে স্পষ্ট করা যাচ্ছে, এ নির্দেশনা ২০১৯ সালের ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে।

উল্লেখ্য, ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে ২ শতাংশ হারে প্রণোদনা ঘোষণা করা হয়। বৈধ উপায়ে প্রবাসী আয় বাড়াতে এমন সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। সে অনুযায়ী, গতবছরের ১ জুলাই থেকে প্রবাসীরা ব্যাংকিং চ্যানেলে টাকা পাঠালে প্রতি ১০০ টাকার বিপরীতে ২ টাকা প্রণোদনা পেয়ে আসছেন। এর ফলে করোনার মধ্যেও রেকর্ড গড়ছে রেমিট্যান্স।

করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে মন্দা কাটাতে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স ৫ হাজার ডলার বা ৫ লাখ টাকা কোনো যাচাই-বাছাই ছাড়া ২ শতাংশ নগদ সহায়তা দিচ্ছে সরকার। যা আগে দেড় লাখ টাকা পর্যন্ত কোনো যাচাই-বাছাই ছাড়া নগদ সহায়তা দেয়া হচ্ছিল।

অর্থসূচক/এমআরএম/এমএস