সৈকতে পড়ে আছে ‘রহস্যময় প্রাণী’র মৃতদেহ

ব্রিটেনের সমুদ্র সৈকতে প্রায় ১৫ ফুট লম্বা এক রহস্যময় প্রাণীর অবয়ব দেখে তো প্রায় চক্ষু চড়কগাছ স্থানীয় বাসিন্দাদের। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি জানিয়েছেন, গত ২৯ জুলাই প্রথম আইন্সডেল সৈকতে ওই অবয়বটি পড়ে থাকতে দেখেন তিনি। তখন সেটে থেকে অত্যন্ত ‘দুর্গন্ধ’ বের হচ্ছিল।

তিনি বলেন, এটার চার পায়ের দিকে চারটি পাখনার মতো জিনিস ছিল যা এই অবয়বকে আরো অদ্ভুত দর্শন করে তুলেছিল। এটি প্রায় ১৫ ফুট দীর্ঘ ছিল এবং এর হাড়গুলো চারপাশে ছড়িয়ে ছিল, যার মধ্যে কোনও কোনওটি আবার প্রায় ৪ ফুট দীর্ঘ।

দ্বিধাগ্রস্ত কণ্ঠে স্থানীয় ওই বাসিন্দা আরও বলেন, এটা দেখে আপনার মনে হতে পারে যে একটি প্রাণীর সঙ্গে আরেকটি প্রাণী যেন যুক্ত হয়ে আছে। এটা কি হতে পারে যে কোনও প্রাণী হয়তো তাঁর বাচ্চার জন্ম দিতে গিয়ে এখানে মারা গিয়েছিল?

উদ্ভট চেহারার এই প্রাণীটির ছবিটি আইন্সডেল কমিউনিটি গ্রুপের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্ট করা হয়েছিল যা দেখতে দেখতে অল্পসময়ের মধ্যেই ভাইরাল হয়ে যায়। ছবিটিতে বিশাল ওই প্রাণীটিকে সমুদ্র সৈকতের বালির উপর পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

ছবিটি ভাইরাল হয়েছে এবং এটি দেখে ৫০০ জনেরও বেশি মানুষজন নানা মন্তব্য করেছেন। অনেকে অনুমান করার চেষ্টা করেছেন যে প্রাণীটি ঠিক কী হতে পারে?

‘এটা কি উলি ম্যামথ?’ একজন এমন প্রশ্নও করেছেন। তিনি এও যোগ করেন, ‘হ্যাঁ আমি জানি ওই প্রাণীটি বিলুপ্ত হয়ে গেছে। তবে সত্যিই এটাকে দেখে আমার ওর কথাই মনে হলো!’

দ্য সান-এর তরফে জানানো হয়েছে, ন্যাচারাল ইংল্যান্ডের ঊর্ধ্বতন কর্তা স্টিফেন অ্যালিফ বলেছেন যে এই প্রাণীটির পরিচয় এখনও জানা যায়নি।

তিনি বলেন, আমরা নিশ্চিত করে এটা বলতে পারি যে, সৈকতে কোনও প্রাণী পচে রয়েছে। তবে প্রাণীটি ঠিক কী তা এখনও শনাক্তকরণ করা সম্ভব হয়নি। তবে এটি তিমির একটি প্রজাতি বলেই মনে হচ্ছে।

এর আগে ২০১৭ সালে ফিলিপিন্সের সৈকতে এমন একটি রহস্যময় সামুদ্রিক প্রাণীর দেহ উপকূলে পড়ে থাকতে দেখা যায়। সেই সময়ও তা নিয়ে অনেক রহস্যের জন্ম দেয়।

সূত্র: এনডিটিভি

অর্থসূচক/কেএসআর