‘প্রধানমন্ত্রীর উদার বিনিয়োগ নীতির কারণে মাথাপিছু আয় বেড়েছে’

দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ ছাড়া আমরা কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছতে পারব না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান।

তিনি বলেন, ১০ বছর আগে হয়তো এটা অকল্পনীয় ছিল যে, আমাদের রফতানি আয়, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ও বাজেট এত বড় হবে। ১০ বছর ধরে গড়ে আমাদের প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৭ শতাংশের ওপর। গত বছর যা ছিল ৮ দশমিক ১ শতাংশ। বেড়েছে মানুষের মাথাপিছু আয়, যা সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী দক্ষ নেতৃত্ব ও উদার বিনিয়োগবান্ধব নীতির কারণে।

আজ বুধবার (১২ আগস্ট) বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) আয়োজিত অনলাইন অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সালমান এফ রহমান বলেন, বর্তমানে বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসের প্রভাবে এ বছর আমাদের কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জন করা সম্ভব হয়নি। তবু এগিয়ে যেতে হবে। সৃষ্টি করতে হবে ব্যবসা ও বিনিয়োগের জন্য সেরা পরিবেশ। আগামী বছরের মধ্যেই বিশ্বব্যাংকের ইজি অব ডুয়িং বিজনেস বা সহজে ব্যবসা সূচকে দুই অঙ্কের ঘরে উন্নয়নই আমাদের লক্ষ্য। সেই লক্ষ্যই কাজ করে যেতে হবে।

অনলাইন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিডার ওয়ান স্টপ সার্ভিস (ওএসএস) পোর্টালে আজ থেকে নতুন তিনটি সেবা যুক্ত হয়েছে। ওএসএস পোর্টালে যুক্ত হওয়া সেবা তিনটি হলো- নির্বাচন সচিবালয়ের জাতীয় পরিচয়পত্র যাচাই করা, সুরক্ষা সেবা বিভাগের সিকিউরিটি ক্লিয়ারেন্স এবং চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের ভূমি ব্যবহার ছাড়পত্র।

অনুষ্ঠানে বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম, নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. আলমগীর, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব মো. শহীদুজ্জামান এবং গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শহীদ উল্লাহ খন্দকার নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে সেবাগুলো বাস্তবায়নের পদ্ধতি তুলে ধরেন।

দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের সব ধরনের সেবা অনলাইনে প্রদানের লক্ষ্যে বিডা ২০১৮ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর বিজনেস অটোমেশন লিমিটেডের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করে। এর অংশ হিসেবে ২০১৯ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি অনলাইনভিত্তিক ওয়ান স্টপ সার্ভিস পোর্টালের কার্যক্রম চালু হয়। বর্তমানে নতুন তিনটি সেবাসহ অনলাইন ওয়ান স্টপ সার্ভিসের আওতায় বিডার নিজস্ব ১৪ সেবা এবং অন্যান্য ছয়টি প্রতিষ্ঠানের সাতটি সেবাসহ মোট ২১টি সেবা প্রদান করা হচ্ছে।

অর্থসূচক/কেএসআর